logo

শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে পূর্ব পাকিস্তান পায় স্বাধীনতা : নওয়াজ


শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে পূর্ব পাকিস্তান পায় স্বাধীনতা : নওয়াজ

পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ বলেছেন, ‘হিংস্র আচরণ করে বাঙালিদের আমরা নিজেদের থেকে আলাদা করে দিয়েছি।

 

ভোটে নির্বাচিত জনপ্রিয় নেতাদের কাছে রাষ্ট্রক্ষমতা হস্তান্তর না করার পরিণতি নিয়ে মঙ্গলবার রাজধানী ইসলামাবাদের পাঞ্জাব হাউসে আইনজীবীদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেছেন।

 

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে তিনবার উৎখাত হওয়া নওয়াজ এর আগেও পশ্চিম ও পূর্ব পাকিস্তান নিয়ে কথা বলেছেন। গত বছর পানামা পেপার্স কেলেঙ্কারিতে নাম ওঠার পর সুপ্রিম কোর্টের রায়ে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অযোগ্য ঘোষিত হওয়ার পর তিনি ওই বিষয়টি সামনে এনেছিলেন।

 

সুপ্রিম কোর্টের রায়ে অযোগ্য ঘোষণার প্রসঙ্গ টেনে মঙ্গলবার নওয়াজ বলেন, ‘কিন্তু আমি এইসব ক্ষত ভুলে যেতে চাই। যেখানে আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারি না সেখানে আমি এসব ক্ষতকে নিয়ে যেতে চাই না।’

 

তিনি বলেন, ‘আমার সঙ্গে ও দেশের ইতিহাসে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীদের সঙ্গে যা ঘটেছে তা সঠিক ছিল না। দেশ সেবার জন্য জাতির কাছ থেকে এ কোন ধরনের প্রতিদান?’

 

এক পর্যায়ে নওয়াজ আবারও পাকিস্তানের কাছ থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রসঙ্গে ফিরে আসেন।

 

তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান সৃষ্টিতে বাঙালিদের কেন্দ্রীয় ভূমিকা ছিল। কিন্তু আমরা তাদের সঙ্গে ভালো আচরণ করিনি এবং আমাদের কাছ থেকে তাদেরকে বিচ্ছিন্ন করেছি।’

 

তৎকালীন বিচারপতি হামুদুর রহমান কমিশনের প্রতিবেদন প্রসঙ্গ টেনে নওয়াজ বলেন, ‘বিস্তারিত পর্যালোচনার পর বাংলাদেশ রাষ্ট্রের সৃষ্টি নিয়ে বিচারপতি হামুদুর রহমান কমিশন একটি সত্য ও সুস্পষ্ট প্রতিবেদন তৈরি করেছিলেন। কিন্তু আমরা তা পড়েই দেখিনি।’

 

তিনি বলেন,‘আমরা যদি সে অনুসারে কাজ করতাম তাহলে আজকের পাকিস্তান অন্যরকম হতো এবং যে ধরনের খেলা চলছে তা আর হতো না।’

 

তিনি আরও বলেন, ‘ঢাকা ভাগ হয়ে যাওয়া নিয়ে বিচারপতি হামুদুর রহমান যে কমিশন গঠন করেছিলেন, তারা সব খুঁটিনাটি কারণ উদ্ঘাটন করেছিলেন এবং সত্য প্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু আমাদের কেউ ওই কমিশনের রিপোর্ট আমলে নেয়নি। আমরা যদি সে অনুযায়ী কাজ করতাম, তাহলে আজকের পাকিস্তান ভিন্ন রকম হতো।’

 

ফেডারেল ব্যবস্থা এবং সংবিধানে মুসলিমদের সুরক্ষা প্রদানে হিন্দুদের বিরোধিতার কারণে ১৯৪৭ সালে ভারত ও পাকিস্তান ভাগ হয়। ভূখণ্ড ভাগে ন্যায্যতার দাবিতে চলা আন্দোলনে জিন্নাহর নেতৃত্বে অগ্রভাগেই ছিলেন বাঙালি নেতারা।

 

কিন্তু শেষ পর্যন্ত পশ্চিম পাকিস্তানের সামরিকতন্ত্রের শোষণের মুখে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে পূর্ব পাকিস্তান স্বাধীনতা লাভ করে বাংলাদেশ নামে নতুন দেশের অভ্যুদয় হয়।

 

মন্তব্য

উপর