ঠাকুরগাঁওয়ে হাসপাতালে গিয়ে রোগীর উপর ছাত্রলীগ কর্মীর হামলা

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি, দৈনিক প্রজন্ম ডটকম

প্রকাশিত: বিকাল ০৪:৩৩, ১২ অক্টোবর ২০১৭, বৃহঃস্পতিবার | আপডেট: দুপুর ০২:৪৭, ১৭ অক্টোবর ২০১৭, মঙ্গলবার
ঠাকুরগাঁওয়ে হাসপাতালে গিয়ে রোগীর উপর  ছাত্রলীগ কর্মীর হামলা

ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের ডাক্তাদেরকে ঘরে তালা বন্ধ করে দিয়ে জরুরী বিভাগের ভিতরে রোগী মজিবর (২৫) কে মারপিট করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে। এতে রোগীকে বাচাঁতে গিয়ে হামিদুর রহমান (৩৫) নামে এক ব্যক্তি গুরত্বর আহত হয়েছেন।  

বুধবার রাতে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে। 

 

আহত রোগীর নাম মজিবর রহমান (২৫)। সে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার দুওসুও পেট্টোলপাম্প এলাকার সাহির উদ্দীনের ছেলে।

জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মজিবর ও তার ভাই খলিলুর রহমান বালিয়াডাঙ্গী বাজারে একটি মোবাইলের দোকানের সামনে দাড়িয়ে ছিল। এসময় মহিষমারী গ্রামের পজির উদ্দীন খলিলুরের হাতে থাকা মোবাইল ফোনটি ছিনতাই করার সময় ধরা পড়ে। 

 

পরে ছিনতাইর বিষয়টি আজ বুধবার বিকাল ৫টার সময় বড়বাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য ইসরাইলের নিকট সমঝোতার কথা থাকলেও পজির ও তার লোকজন হাজির হয়নি। 

আহত মজিবর বলেন, সন্ধ্যায় আমি হোটেল আগমনীতে নাস্তা খাওয়ার জন্য গেলে পজির ও তার লোকজন আমার উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে আমার মাথা ফাটিয়ে দেয়। স্থানীয় লোকজন আমাকে উদ্ধার করে বালিয়াডাঙ্গী হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে যায় এবং আমার বড় ভাই খলিলুর রহমান ও লতিফুর রহমানকে খবর দেয়। 

 

আমার বড় ভাইয়েরা হাসপাতালে পৌছানোর পূর্বেই বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনা’র নেতৃত্বে পজির, উজ্জল, কামাল ও বেলাল লোহার রড ধারালো অস্ত্র নিয়ে হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাক্তারদের আরেক রুমে আটকে রেখে আমাকে আবার বেধরক মারপিট শুরু করে। 

 

রোগীকে বাচাতে গিয়ে আহত হওয়া হামিদুর রহমান বলেন, আমি হাসপাতালের উপর থেকে ঔষুধ নেওয়ার জন্য নিচে নামার সময় দেখি যে, ৫ জন সন্ত্রাসী জরুরী বিভাগের ভিতরে একজন রোগীকে লোহার রড ধারালো অস্ত্র দিয়ে বেধরক মারপিট করছে। আমি বাঁচাতে গেলে সন্ত্রাসীদের আঘাতে আমার ডান হাত ভেঙ্গে গেছে।

 

বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী মিয়া জানান, হাসপাতালে কোন রোগীর উপর হামলা করা দু:খ জনক বিষয়। ছাত্রলীগের কোন কর্মী যদি এই ঘটনার সাথে জড়িত থাকে তাহলে দলীয়ভাবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

বালিয়াডাঙ্গী হাসপাতালের কর্তব্যরত আরএমও আবুল কাসেম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ রকম ঘটনা ইতিপুর্বে হাসপাতালে কোনদিন ঘটেনি। সন্ত্রাসীরা ফিল্মি স্টাইলে এসে ডাক্তাদেরকে জিম্মি করে রোগীকে মারপিট করে গেছে। বিষয়টি দুঃখ জনক। পরে গুরুত্বর আহত মজিবর রহমানকে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

 

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষনিক বিষয়টি থানায় খবর দিলে বালিয়াডাঙ্গী থানার এসআই আজিজুল হক ঘটনাস্থলে আসেন। 

বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ৫ জনকে আসামী করে বালিয়াডাঙ্গী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জরিতদের গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে।

রংপুর বিভাগ এর আরও খবর