logo
শিরোনাম

ক্ষেপনাস্ত্রে বহনযোগ্য নতুন হাইড্রোজেন বোমা বানালো উ: কোরিয়া


ক্ষেপনাস্ত্রে বহনযোগ্য নতুন হাইড্রোজেন বোমা বানালো উ: কোরিয়া

উত্তর কোরিয়া জানিয়েছে আরও উন্নত প্রযুক্তির পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করেছে তারা। আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রে বহনযোগ্য এ হাইড্রোজেন বোমাটি পরিদর্শন করেছেন কিম জং উন।

 

‘ব্যাপক ধ্বংসাত্মক ক্ষমতাসম্পন্ন’ এই হাইড্রোজেন বোমাটি আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রে সংযোজন করা যাবে বলে দাবি উত্তর কোরিয়ার।

 

রোববার সকালে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সির বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম।

 

কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সির সরবরাহ করা এক ছবিতে দেখা যায়, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন ক্ষুদ্র সংস্করণের ওই হাইড্রোজেন বোমাটি পরিদর্শন করছেন।

তবে স্বাধীন কোনো সূত্র থেকে উত্তর কোরিয়ার এ দাবির বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে আল জাজিরা ও বিবিসি।

 

এদিকে, উত্তর কোরিয়ার হাতে উন্নত প্রযুক্তি থাকার দাবি করলেও বিশেষজ্ঞদের এ নিয়ে সন্দেহ ছিল। রোববার দেশটির হাইড্রোজেন বোমার ঘোষণা এরইমধ্যে কোরীয় উপদ্বীপ ও ওয়াশিংটনে আতঙ্ক তৈরি করেছে। এর মাধ্যমে দেশটি পারমাণবিক অস্ত্রের দিক দিয়ে তার লক্ষ্যস্থলের কাছাকাছি পৌঁছেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

 

বোমাটি পরিদর্শনে এসে সংশ্লিষ্টদের কিছু নির্দেশনা দেন কিম। এ সময় তিনি বলেন, এ বোমার ব্যাপক বিধ্বংসী ক্ষমতা রয়েছে। শতভাগ দেশীয় তৈরি উপকরণে ও নিজস্ব প্রযুক্তিতে এটি তৈরি করা হয়েছে।

 

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা ও আন্তর্জাতিক চাপ উপেক্ষা করেই দেশটি পারমাণবিক অস্ত্রের বিকাশ ঘটাচ্ছে। এরইমধ্যে তারা ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে, যা যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে সক্ষম।

 

কিম জং উনের ক্ষমতারোহণের পর থেকেই পরমাণু অস্ত্রের দিকে আরও এগিয়ে যায় দেশটি। এ নিয়ে নিয়মিত হুমকি-ধমকিতে ব্যস্ত ওয়াশিংটন ও পিয়ংইয়ং। সম্প্রতি কয়েক দফা আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়ে এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় মার্কিন ঘাঁটি গুয়ামে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর ঘোষণা দেন কিম। এতে কোরীয় অঞ্চলে তীব্র উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

মন্তব্য

উপর