logo
শিরোনাম

নয় বছর পর আবার সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষক রাষ্ট্রের তালিকায় উত্তর কোরিয়া


নয় বছর পর আবার সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষক রাষ্ট্রের তালিকায় উত্তর কোরিয়া

উত্তর কোরিয়ারকে ‘সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষক রাষ্ট্র’ হিসেবে ঘোষণা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।



নয় বছর আগে সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষক রাষ্ট্রের তালিকা থেকে উত্তর কোরিয়ার নাম বাদ দিয়েছেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ। আবার সেই তালিকায় দেশটির নাম অন্তর্ভুক্ত করলেন ট্রাম্প।


সোমবার হোয়াইট হাউসে মন্ত্রিসভার বৈঠকে ট্রাম্প বলেছেন, নতুন এই পদক্ষেপ উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে আরো বেশি নিষেধাজ্ঞা আরোপ ত্বরাণ্বিত করবে। পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার আরো কঠোর নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দেওয়ার কথা যুক্তরাষ্ট্রের। তবে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন বলেছেন, হয়তো তার বাস্তব প্রভাব খুব বেশি হবে না।



পরমাণু কার্যক্রম ও তার প্রতি সমর্থনকে ‘সন্ত্রাসবাদের আন্তর্জাতিক কর্মকাণ্ড’ উল্লেখ করে উত্তর কোরিয়াকে সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষক রাষ্ট্র ঘোষণা করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসের বৈঠকে ট্রাম্প বলেন, আরো আগে এই ঘোষণা দেওয়া উচিত ছিল।



উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে জ্বালানি তেলের নিষেধাজ্ঞা ও দেশটির নেতা কিম জং-উনের সব সম্পদ বাজেয়াপ্ত করতে সেপ্টেম্বর মাসে জাতিসংঘের কাছে প্রস্তাব রেখেছিল যুক্তরাষ্ট্র। ষষ্ঠ পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্রসহ পরপর কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর পর দেশটির বিরুদ্ধে ওই কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রস্তাব দেয় যুক্তরাষ্ট্র।



আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদে সমর্থন দেওয়ার অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রের ‘সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষক তালিকায়’ ইরান, সুদান ও সিরিয়ার পাশাপাশি উত্তর কোরিয়ার নামও যুক্ত হলো। এসব দেশের সরকারের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক সম্পর্ক ভালো নয়। শুধু তাই নয়, এ দেশগুলো বিভিন্ন সময় যুক্তরাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জ করে বক্তব্যও দিয়ে থাকে। 



পরমাণু কার্যক্রম ইস্যুতে সমঝোতার চেষ্টায় ২০০৮ সালে প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের প্রশাসন তালিকা থেকে উত্তর কোরিয়ার নাম প্রত্যাহার করে নেয়। কিন্তু দেশটিতে কারারুদ্ধ মার্কিন শিক্ষার্থী ছাড়া পাওয়ার কয়েক দিনের মাথায় মারা যাওয়ায় উত্তর কোরিয়াকে ‘সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষক’ ঘোষণার দাবি আবারো জোরালো হয়।

মন্তব্য

উপর