এই মাত্র পাওয়া

সর্ব শেষ সংবাদ

সুয়ারেজের শেষ সময়ের গোলে পয়েন্ট পেল মেসির বার্সা

বিশেষ প্রতিনিধি, দৈনিক প্রজন্ম ডটকম

প্রকাশিত: দুপুর ০১:৫৫, ১৫ অক্টোবর ২০১৭, রবিবার | আপডেট: বিকাল ০৩:০৭, ১৮ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার
সুয়ারেজের শেষ সময়ের গোলে পয়েন্ট পেল মেসির বার্সা

টানা সাত ম্যাচ জয়ের পর অ্যাটলেটিকোর মাঠে হারের শঙ্কায় পড়েছিল মেসির বার্সেলোনা। তবে দ্বিতীয়ার্ধে একের পর এক আক্রমণ চালিয়ে শেষ সময়ে লুইস সুয়ারেজের গোলে শেষ পর্যন্ত হার এড়িয়ে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে মাঠ ছেড়েছে ভালভার্দের দল।

 

ম্যাচের আগেও লিওনেল মেসির প্রশংসা করেছিলেন অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের কোচ দিয়েগো সিমিওনি। সেই প্রশংসাটা ছিল দেশ আর্জেন্টিনার হয়ে গত বুধবার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে ইকুয়েডরের বিপক্ষে জাদুকরী ফুটবল উপহার দেওয়ার জন্য। অসাধারণ এক হ্যাটট্রিক করে মেসি আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপে তুলেছেন। একজন আর্জেন্টাইন হিসেবে সিমিওনি তাই মেতে উঠেছিলেন মেসি-বন্দনায়। ভাগ্যদেবীর ঈশারাতেই কিনা, অ্যাতলেতিকোর আর্জেন্টাইন কোচ স্বদেশী মেসি-বন্দনায় মাতলেন শনিবার রাতে ম্যাচ শেষেও। না, শনিবার রাতে মেসি সিমিওনির দলের বিপক্ষে গোল পাননি। বার্সেলোনাও জিততে পারেনি। তবে ম্যাচজুড়ে অসাধারণ ফুটবল উপহার দিয়েছেন মেসি। প্রথমে পিছিয়ে পড়েও যে অ্যাতলেকিতোর মাঠ থেকে ১-১ গোলে ড্র করে একটা পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পেরেছে বার্সেলোনা, তার মূলে ছিলেন মেসিই!

 

স্কোরকার্ড অবশ্য বলবে অন্য কথা। লিগে আগের ৭ ম্যাচেই জিতেছে বার্সেলোনা। আর্নেস্তো ভালভার্দের দল তাই অ্যাতলেতিকোর মাঠে গিয়েছিল টানা অষ্টম জয়কে লক্ষ্য করে। কিন্তু জয়স্বপ্নের পাশাপাশি ভালভার্দের দল এটাও জানত, অ্যাতলেতিকোর মাঠে ম্যাচটা তাদের জন্য কঠিন হবে। নিজেদের মাঠে অ্যাতলেতিকো ঠিক সেই কাজটাই করেছে। ম্যাচের ৪০ মিনিটে গোল করে অ্যাতলেতিকোকেই এগিয়ে দিয়েছিলেন নিগুয়েজ।

 

অ্যাতলেতিকো এই লিড ধরে রেখেছিল ৮২ মিনিট পর্যন্ত। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা আর ধরে রাখতে পারেনি সিমিওনির দল। ৮২ মিনিটে হেডে অসাধারণ এক গোল করে বার্সেলোনাকে সমতায় ফেরান উরুগুইয়ান ফরোয়ার্ড লুইস সুয়োরেজ। আর তাতেই অ্যাতলেতিকোর নতুন মাঠ ওয়ান্ডা মেট্টোপলিটানো থেকে ড্র নিয়ে ফিরতে পেরেছে বার্সেলোনা। নতুন মৌসুমে লিগে বার্সেলোনা পয়েন্ট হারালো এই প্রথম। তবে একটা পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পারাটাও ছিল বার্সেলোনা কোচ ভালভার্দের জন্য স্বস্তির।

 

জিততে জিততে ড্র করতে হয়েছে। শেষ মুহূর্তে গোল খেয়ে পয়েন্ট হারানোর হতাশা হয়তো আছে। তবে দলের পারফরম্যান্সে খুশি অ্যাতলেতিকোর কোচ সিমিওনি। তবে নিজ দলের খেলোয়াড়দের চেয়ে ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে এই আর্জেন্টাইন বেশী প্রশংসা করলেন স্বদেশী মেসির, ‘স্টেডিয়াম ছিল চমৎকার। আমরা আরেকটা ম্যাচে অসাধারণ ফুটবল খেলেছি। তবে উজ্জীবিত মেসি ছিল অসাধারণ।’

 

একটু থেমে সিমিওনি আবার বলেছেন, ‘একমাত্র মেসিকেই আপনি মাঠের সর্বত্রই দেখতে পেয়েছেন। প্রতিটা মুহূর্তেই সে বল ছুঁয়েছে, বলেল পেছনে ছিল। অনেকেই মনে করেছিল, দেশ আর্জেন্টিনার হয়ে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে এসে সে ক্লান্ত থাকবে। কিন্তু সে মোটেও ক্লান্ত ছিল না। সে অবিশ্বাস্য একটা ম্যাচই খেলেছে।’

ফুটবল এর আরও খবর