logo
Floating 2
Floating

নুসরাতকে “ধর্ষণ করার মতই” মন্তব্য করায় চাকরি গেল সেই মামুনের


নুসরাতকে “ধর্ষণ করার মতই” মন্তব্য করায় চাকরি গেল সেই মামুনের

ফেনীর সোনাগাজীতে নুসরাত জাহান রাফিকে দিনদুপুরে পরীক্ষা কেন্দ্রে পুড়িয়ে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ও নেপথ্য খলনায়কদের ফাঁসির দাবি নিয়ে যখন সারা দেশ উত্তাল। ঠিক সেই মুহূর্তে অগ্নিদগ্ধ মাদরাসাছাত্রী নুসরাতকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আপত্তিকর মন্তব্য করায় চাকরি হারিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী। শুধু তাই নয়, সেইসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাকে বহিষ্কার করার দাবিও উঠেছে।

জানা গেছে, তার নাম মামুন বিল্লাহ।

২০১৭ সালে অভিযুক্ত মামুন বিল্লাহ নামের ওই শিক্ষার্থী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগ থেকে স্নাতক পাস করে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছিলেন। স্নাতকোত্তরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ রয়েছে তার।

দেশের একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিহত নুসরাত জাহান রাফির বিষয়ে একটি সংবাদ প্রকাশ করে। পরে এ খবরটি তাদের ফেসবুক পাতায় শেয়ার দেয়া হয়। সেখানে মামুন বিল্লাহর ফেসবুক আইডি থেকে আপত্তিকর মন্তব্য করা হয়, ‘মেয়ে টা কিন্তু জোস ছিল, মালটা ধর্ষণ করার মতই ছিলো।’


এমন আপত্তিকর মন্তব্যের পর অনেকেই তাকে ‘ভবিষ্যৎ ধর্ষক’ হিসেবে চিহ্নিত করে তার শাস্তির দাবি করে ফেসবুকে পোস্ট দিচ্ছেন।

উল্লেখ্য, গত ৬ এপ্রিল তারিখে সকাল বেলা সোনাগাজী ফাজিল মাদরাসা কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে গেলে নুসরাত জাহান রাফিকে পরীক্ষা কেন্দ্রের ছাদে ডেকে নিয়ে শ্লীলতাহানির মামলা তুলে নিতে বলা হয়। এ সময় নুসরাত মামলা তুলে নিতে অস্বীকৃতি জানালে মুখোশ পরা লোকজন তার গায়ে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়।

পরে বুধবার (১০ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন নুসরাত মারা যান।

মন্তব্য

উপর