logo
Floating 2
Floating

‘আপনারা সবাই পান্তাভাত খাইয়েছেন...?’


‘আপনারা সবাই পান্তাভাত খাইয়েছেন...?’

বাংলা নববর্ষকে বরণ করে নিতে চ্যানেল আই ও সুরের ধারা আজ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র প্রাঙ্গণে ৮ম বারের মতো আয়োজন করেছে বাংলা বর্ষবরণ অনুষ্ঠান ‘লিভার আয়ুশ হাজারো কণ্ঠে বর্ষবরণ ১৪২৬’।

এবারের মেলায় ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং সস্ত্রীক উপস্থিত ছিলেন। তিনি পড়ালেখা করেছেন ময়মনসিংহ ও বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ থেকে।

রবিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের উন্মুক্ত চত্বরে একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে তিনি বলেন, আমি আজকে অনেক খুশি হয়েছি। আমি এখান থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার জন্য খুবই এক্সসাইটেড হয়ে আছি।

এসময় তিনি বলেন, ‘আমাদের পক্ষ থেকে সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা। আপনারা সবাই পান্তাভাত খাইয়েছেন...?’ তিনি বাংলা বলতে পারেন এবং বোঝেন। তবে খেয়েছেন শব্দটির উচ্চারণ করলেন ময়মনসিংহের মতো করে- ‘খাইয়েছেন’।

তিনি বলেন, ময়মনসিংহে আমি সাত বছর ছিলাম। এরপর ঢাকায় চার বছর এফসিপিএস করেছি। এখানে এসে মনে হচ্ছে, আমার দ্বিতীয় বাড়িতে এসেছি।

অনুষ্ঠানে রবীন্দ্র সংগীতশিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার নেতৃত্বে হাজারো কণ্ঠে ‘তোমার কাছে এ বর মাগি, মরণ হতে যেন জাগি গানের সুরে’ সংগীতে নতুন বছরকে বরণ করা হয়।

এর আগে স্বাস্থ্য, কৃষি, জাহাজ চলাচল, পর্যটন ও জনপ্রশাসন প্রশিক্ষণ বিষয়ে সহযোগিতা জোরদারের জন্য বাংলাদেশ এবং ভুটানের মধ্যে পাঁচটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর প্রথম বাংলাদেশ সফরে এসে শিক্ষা জীবনের স্মৃতি বিজড়িত কলেজের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে নিজের স্মৃতি রোমন্থন করে বক্তব্য রাখেন ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং।

পরে তিনি ক্যাম্পাসে তার স্মৃতিবিজড়িত বিভিন্নস্থান পরিদর্শন করেন এবং তার সহপাঠীদের সঙ্গে একান্তে কিছু সময় কাটান।

প্রধানমন্ত্রী ডা. লোটে শেরিংয়ের আগমনে সহপাঠী, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা আনন্দিত ও উচ্ছ্বসিত হয়ে পড়েন।

লোটে শেরিং বিদেশি কোটায় ১৯৯০-৯১ শিক্ষাবর্ষে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস প্রথম বর্ষে ভর্তি হন। প্রায় সাত বছর লেখাপড়া শেষ করে নিজ দেশে ফিরে গিয়ে রাজনীতিতে যোগ দেন।



দৈনিক প্রজন্ম ডট কম/ জো, ই/২০১৯/

মন্তব্য

উপর