logo
Floating 2
Floating

মাগুরায় জুতা পায়ে  শহীদ মিনারে বর্ষবরণ


মাগুরায় জুতা পায়ে  শহীদ মিনারে বর্ষবরণ

মাগুরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় চত্বরে জুতা পড়ে শহীদ মিনারের বেদীতে উঠে আনন্দ বিনোদনের ছবি তুলে ফেসবুকে ছবি ভাইরাল হওয়ার পর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ শুরু হয়েছে। বাংলা নববর্ষ উদযাপন করতে গিয়ে সুপ্রভাত বাংলাদেশ নামে একটি স্থানীয় সংগঠনের কিছু সদস্য ওইদিন স্কুল চত্বর থেকে শহরে র‌্যালী বের করে। এর পরপরই তারা স্কুলের ভেতরে একটি কক্ষে খাওয়া দাওয়া করে। পরে তারা স্কুল চত্বরে শহীদ মিনার বেদীতে জুতা পায়ে আনন্দ বিনোদনে মেতে ওঠে। ছবিতে দেখা যায়  শহীদ মিনার চত্বরে জুতা পায়ে শহরের ঠিকাদার আলমগীর কবির ও ব্যবসায়ী খন্দকার নুরুজ্জামান এর  আনন্দ বিনোদন করছেন। এ ছবি Monju Islam নামে এক ব্যক্তি তার ফেসবুকে পোষ্ট করেন। এ ছবিগুলি আবার Alamgir Motors Magura সহ বেশ কয়েকজন তাদের ওয়ালে শেয়ার করে। এদিকে বিশেষ জাতীয় দিবসে শহীদ মিনারের এমন অবমাননায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ও আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবী  জানিয়েছেন একাধিক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান।
এ প্রসঙ্গে মাগুরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন মুক্তা জানান- শহীদ মিনার আমাদের জাতীয় চেতনার গুরুত্বপূর্ণ একটি অনুষঙ্গ। শুধুমাত্র একুশে ফেব্রুয়ারীতে আমরা শহীদ মিনারকে শ্রদ্ধা জানাবো অন্যান্য দিনে শহীদ মিনারের অবমাননা করবো এটি কখনোই কাম্য হতে পারে না। এ ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া জরুরী।

জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মেলন পরিষদ মাগুরা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. মোখলেছুর রহমান জানান- বাঙ্গালী নববর্ষ আমাদের জাতীয় ঐক্যের একটি অনন্য অনুষঙ্গ। কিন্তু এ দিনটি পালন করতে গিয়ে জাতীর চেতনার উৎস শহীদ মিনারকে অবমাননা করা খুবই গর্হিত অপরাধ হয়েছে। আমরা অবশ্যই এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

আলমগীর কবির ও ব্যবসায়ী খন্দকার নুরুজ্জামান জানান,আনন্দ করতে গিয়ে মনের অজান্তে এটা হয়ে গেছে। এব্যপাওে আমরা ক্ষমা চাচ্ছি।

এব্যাপারে মতামত জানতে আলমগীর কবির এর নাম্বারে ০১৮২৩৪০১৬৬৫ একাধিক বার ফোন করলেও তিনি ফোন রিসিব করেননি।

মাগুরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর হোসেন জানান-  স্কুল কর্তৃপক্ষের অবর্তমানে এ ধরনের শহীদ মিনার অবমাননার ঘটনা ভাল হয়নি। বিষয়টি আমার নজরে আসেনি। এ ব্যাপারে আমি ব্যবস্থা নিচ্ছি।


মন্তব্য

উপর