logo
Floating 2
Floating
শিরোনাম

করোনায় কর্মহীন দরিদ্রের বাড়িতে খাদ্য পৌঁছে দিলেন ইন্দুরকানীর ইউএনও


করোনায় কর্মহীন দরিদ্রের বাড়িতে খাদ্য পৌঁছে দিলেন ইন্দুরকানীর ইউএনও

মানবসেবার ব্রত নিয়ে করোনাভাইরাসের প্রভাবে কর্মহীন হওয়া অসহায় দরিদ্রদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল মুজাহিদ।

আজ রবিবার উপজেলার পাড়েরহাট ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডের হতদরিদ্রদের বাড়িতে চালের বস্তা নিয়ে হাজির হন এ কর্মকর্তা।

তিনি নিজ হাতে গাড়ি থেকে ১০ কেজি চালের বস্তাগুলো বহন করে কর্মহীন দরিদ্রদের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেন। এ সময় ওই সব বাড়িতে থাকা ব্যক্তিরা অবাক হয়ে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে তাদের বাড়িতে দেখে।

অফিসারের হাত থেকে চাল পেয়ে চরগাজীপুর গ্রামের রিকশাচালক আব্দুল হাই (৫৫) জানান, মোর ঘরে স্যারে আইয়া চাউল দিয়া যাইবে হ্যা কোনোদিন হপ্পনেও (স্বপ্ন) ভাবি নাই। আল্লায় সরকারেরে রহমত করুক। এই ভাবে যদি ঘরে বইয়া খাওন পাওয়া যায় হেলে তো আর মোগো ঘর দিয়া বাইরান (বাহির হওয়া) লাগে না।


উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল মুজাহিদ জানান, আমাদের সংসদ সদস্য আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর নির্দেশনায় আমি কর্মহীন দরিদ্র ব্যক্তিদের ঘরে ঘরে গিয়ে চাল পৌঁছে দিয়েছি। তার নিজস্ব অর্থায়নে প্রেরিত নানা প্রকার সুরক্ষা সরঞ্জাম হাসপাতাল ও জনসাধারনের মাঝে বিতরণ করেছি। যাতে করে কাউকে ঘরের থেকে বের হতে না হয়। তার জন্য যতটা সম্ভব কাজ করছি। গণজমায়েত বন্ধের জন্য মাইকিং ও টহল অব্যাহত রেখেছি। ভ্রাম্যামান আদালত চলমান রয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম জানান, আজ আমরা পাড়েরহাটের ১৫০টি পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে চাল বিতরণ করেছি। পত্তাশী ও বালিপাড়ায় চারশত পরিবারের মাঝেও মানবিক খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির আওতায় চাল বিতরণ করা হবে।



পাড়েরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা জাতীয় পার্টি জেপির যুগ্ম আহ্বায়ক গোলাম সরোয়ার বাবুল জানান, আমাদের ইন্দুরকানী উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল মুজাহিদ একজন গণমুখী কর্মকর্তা। উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারণের সাথে এক আত্মীক সম্পর্ক গড়ে তুলেছেন তিনি। সর্বসাধারণ তাকে খুব আপনজন মনে করেন।

উল্লেখ, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন কেউ শনাক্ত হয়নি। আজ রবিবার সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। গত দুই দিনে কারও মৃত্যুও হয়নি।

গত ৮ মার্চ প্রথম তিনজনের করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংবাদ আসে। আইইডিসিআরের তথ্যমতে, আজ রবিবার পর্যন্ত দেশে মোট ৪৮ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন পাঁচজন।

মন্তব্য

উপর