logo
Floating 2
Floating
শিরোনাম

কারখানার বিষাক্ত গ্যাস লিক, নিহত ৮ অসুস্থ দুই শতাধিক


কারখানার বিষাক্ত গ্যাস লিক, নিহত ৮ অসুস্থ দুই শতাধিক

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য অন্ধ্রপ্রদেশের একটি রাসায়নিক কারখানায় বিষাক্ত গ্যাস লিক হয়ে অন্তত আটজনের মৃত্যু হয়েছে। অসুস্থ হয়েছেন অনেকে। তাদের মধ্যে ২০০ শতাধিক মানুষকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া, এনডিটিভির।

বৃহস্পতিবার সকালে বিশাখাপত্তনমের এলজি পলিমার ইন্ডিয়া (প্রা.) লিমিটেড নামে প্রতিষ্ঠানটিতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রতিবেদনে বলা হয় নাউডুথোটা এলাকার কাছে আরআর ভেঙ্কাটাপুরামে অবস্থিত এলজি পলিমারস কারখানাটিতে মূলত পলিসট্রিন তৈরি করে, যা দিয়ে বিভিন্ন ধরণের প্লাস্টিকের খেলনা এবং অন্যান্য প্লাস্টিকের জিনিস তৈরি করা হয়। সকালে কারখানাটিতে গ্যাস লিক হয়। এতে সেখানে ৩ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের এলাকায় মারাত্মক এক পীড়া সৃষ্টি হয়। অনেক মানুষকে দেখা যায় রাস্তার ওপর অচেতন হয়ে পড়ে আছেন। অনেককে দেখা যায়, তীব্র শ্বাসকষ্টে ভুগছেন।

এক ধরণের উদ্ভিদ থেকে নির্গত রাসায়নিক থেকেই ওই বিষাক্ত গ্যাস তৈরি হয়েছে। আর সেটি বাইরের বাতাসে মিশে যাওয়ায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে ওই কেমিক্যাল প্ল্যান্টের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

মারা যাওয়া আটজনের মধ্যে এক শিশুও রয়েছে। অসুস্থ হয়ে পড়েছেন এলাকার অনেক মানুষ। তাদের মধ্যে ২০০ শতাধিক মানুষকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বহু মানুষ অভিযোগ করেছেন তাদের শরীরে ফোস্কা পড়েছে। চোখ জ্বালাপোড়া করছে। বিষয়টি প্রকাশ হতেই স্থানীয় পুলিশ ছুটে যায় ঘটনাস্থলে এবং লোকজনকে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। তবে ঘটনার প্রকৃত কারণ কি তা স্পষ্ট জানা যায়নি।

আরআর ভেঙ্কটাপুরাম গ্রামের বাসিন্দারা জানান, তাদের চোখ হঠাৎ করে খুব জ্বালা করতে শুরু হয়েছে ও নি:শ্বাস-প্রশ্বাসে ভয়ঙ্কর কষ্ট হচ্ছে। এরপরেই অসুস্থ হয়ে পড়া ওই ব্যক্তিদের স্থানীয় হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বিশাখাপত্তনম পৌরসভার পক্ষ থেকে টুইট করে স্থানীয় এলাকার বাসিন্দাদের স্বাস্থ্যসুরক্ষার স্বার্থে তাঁদের ঘর থেকে বাইরে না আসার অনুরোধ করা হয়।

উদ্ধারকারীদের তোলা মোবাইলের ভিডিওতে দেখা গেছে ওই এলাকায় কমপক্ষে ১০ জন ব্যক্তি জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে রয়েছেন। এর ফলে হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

যারা শ্বাসকষ্টে ভুগছেন তাদেরকে অক্সিজেন দেয়া হচ্ছে। এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে এনডিআরএফ এবং এসডিআরএফের টিম। তারা সেখানে উদ্ধার অভিযান শুরু করেছে।

মন্তব্য

উপর