logo
Floating 2
Floating

নেত্রকোণায় ৪০০ জন ছাত্রছাত্রীর ৬ মাসব্যাপী আইটি-ট্রেনিং শুরু


নেত্রকোণায় ৪০০ জন ছাত্রছাত্রীর ৬ মাসব্যাপী আইটি-ট্রেনিং শুরু

৪৩ কোটি ৬০ লাখটাকা ব্যয়ে নির্মানাধীন ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন প্রকল্প’ এর আওতায় আজ থেকে নেত্রকোণায় ৪০০ জন ছাত্রছাত্রীর ৬ মাসমেয়াদি আইটি-ট্রেনিংয়ের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। উক্ত প্রকল্পের আওতায় নেত্রকোণা সদরথানার পুরাতন জেলখানা এলাকায় বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধেসম্বলিত ৩৬ হাজার বর্গফুটবিশিষ্ট ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার’ শীর্ষক একটি ৬-তলা ট্রেনিং-ভবনেরও কাজ ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে। 


নেত্রকোণাসহ দেশের আরো বেশ কয়টি জেলায় ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন প্রকল্প’ এর অধীনে এ ধরণের একাধিক প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারিতে এবং এর সমাপ্তি ঘটবে ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে। প্রকল্পের সর্বমোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০৫ কোটি ১০ লাখ ৩৮ হাজার টাকা এবং নেত্রকোণার ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টারটি নির্মানে ব্যয় হবে মোট ৪৩ কোটি ৬০ লাখটাকা। নিয়মিত ট্রেনিং-কার্যক্রমের অংশ হিসেবে নেত্রকোণায় বিভিন্ন অস্থায়ী ভবনে এসএসসি ও এইচএসসিপর্যায়ে ৪০০ জন ছাত্রছাত্রীর আইটিভিত্তিক এই ট্রেনিং শুরু হলো। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করে। নেত্রকোণা সরকারি মহিলা কলেজপ্রাঙ্গনে ট্রেনিং-কার্যক্রমের উদ্বোধনীতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু 


‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন প্রকল্প’ এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে- এসএসসি ও এইচএসসিপর্যায়ে ছাত্রছাত্রীদের আইটিতে দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলার মাধ্যমে মানবসম্পদের উন্নয়ন, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তিখাতে উদ্যোক্তা তৈরিতে সহায়তা করা, একাডেমিয়া এবং আইটি ইন্ডাস্ট্রির মফহ্যে সেতুবন্ধ প্রতিষ্ঠা করা এবং আইটি ও আইটিইএস-সম্পর্কিত খাতে দেশের যুবসমাজের আত্মকর্মস্নগস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা।


নেত্রকোণার ট্রেনিং সেন্টারটি স্থাপনের ফলে এসএসসি ও এইচএসসিপর্যায়ের ঝরেপড়া কর্মহীন বেকার যুবসমাজ বিশেষভাবে উপকৃত হবে। নির্মানাধীন হাইটেক আইটি সেন্টারের প্রতিতলায় থাকবে হাইস্পিড ইন্টারনেট, ২টি অত্যাধুনিক লিফট ও জেনারেটরের সুবিধা। ২য় ও ৩য়তলায় থাকছে প্লাগ এন্ড প্লেসহ ট্রেনিং-সেন্টার। এছাড়া ৪র্থ ও ৫মতলায় থাকছে স্টার্টআপদের যাবতীয় সুযোগসম্বলিত স্পেস ও বিজনেস স্পেস। ৬ষ্ঠতলায় চিত্তবিনোদনের জন্য  থাকছে স্পোর্টস কালচার এন্ড সোশাল নেটওয়ার্কিং স্পেস। প্রশিক্ষণ-ভবনটির নির্মিত হলে ৪টি শ্রেণিকক্ষে ১০০ জন করে মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ পেলে প্রতিমাসে ৪০০ জন হিসেবে বছরে মোট ৪৮০০ জন করে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হবে।  


প্রকল্পচলাকালীন মোট জেলার মোট ২০০০ জনকে ট্রেনিং দেয়া হবে। এতে তারা স্বাবলম্বী হবার পাশাপাশি উদ্যোক্তাহিসেবেও গড়ে উঠবে। প্রশিক্ষণ-কার্যক্রম সম্পন্ন হবে ২টি ধাপে। প্রথম্ভাগে বেসিম কম্পিউটার, ইংলিশ কমিউনিকেশন এবং ফ্রি-ল্যান্সিং এর ওপরে ৩ মাসব্যাপী কারিকুলামের পর দ্বিতীয়ধাপে প্রশিক্ষণার্থীদের দক্ষ জন্সম্পদ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য যুগোপযোগী কালিকুলাম প্রণয়ন করা হয়েছে। ট্রনিংয়ের বিষয়গুলো হচ্ছে-ডিজিটাল মার্কেতিং, সার্চ ইঞ্জিন অপটেমাইজেশন, কন্ডাক্টিং ই-কমার্স মেনেজমেন্ট, গ্রাফিক ডিজাইন, ওয়ার্ডপ্রেস, কোডিংনেটর, টুডি ও থ্রিদি এনিমেশন। 


মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার আইটিখাতকে বিনাপুজির ব্যবসায় হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি বলেন এখাতে সফলতার জন্য ছাত্রছাত্রীদের মেধা, আইটিজ্ঞান ও সৃজনশীলতাবৃদ্ধি করতে হবে। মৎস্য প্রতিমন্ত্রী খসরু নেত্রকোণাকে পশ্চাদপদ এলাকা উল্লেখ করে বলেন, এখানকার মানুষের দুর্দিন শিগগির ঘুচে যাবে যদি তারা তাদের ছেলেমেয়েদের শিক্ষা-দীক্ষায় মেধাবী করে গড়ে তোলে এবং আইটিখাতে কাজে লাগায়। 


উদবোধন অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান, প্রকল্প-পরিচালক গৌরীশঙ্কর ভট্টাচার্য্য ও BASIS এর উপপরিচালক দিদারুল আলম সানি বক্তৃতা করেন। 

মোঃ শাহ আলম

সিনিয়র তথ্য অফিসার

০১৫১১৬৭৭৬৭৮


18@দৈনিক প্রজন্ম ডটকম /  জা.আ

মন্তব্য

উপর