logo
Floating 2
Floating

বীমা কোম্পানির খপ্পড়ে নারী গার্মেন্টস শ্রমিক : নামে ইসলাম কামে বে-ইসলাম


বীমা কোম্পানির খপ্পড়ে নারী গার্মেন্টস শ্রমিক : নামে ইসলাম কামে বে-ইসলাম

ট্রাস্ট ইসলামী লাইফ ইনসিওরেন্স (জীবন বীমা) লি: কোম্পানিরর খপ্পড়ে পড়ে পারিবারিক কলহের সৃস্টি হয়েছে নারী গার্মেন্টস শ্রমিকদের এমন একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ার কাঠগড়া এলাকায় এমন ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়।অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্প্রতিবার(২৫এপ্রিল) কাঠগড়া এলাকায় অনুসন্ধান কালে বেড়িয়ে আসে ঘটনার সত্যতা। জানতে পারা যায়, মাস শেষে যখন নারী গার্মেন্টস কর্মীরা বেতন হাতে পায় তার দু-একদিন পরই ট্রাস্ট ইসলামী লাইফ ইনসিওরেন্স কোম্পানী নামের একটি প্রতিষ্ঠানের একজন মহিলা  মাঠকর্মী প্রত্যেকটা ভাড়াটিয়ার দড়জায় কড়ানাড়ে এবং তাদেরকে পরামর্শ দেয় একটি জীবন বীমা খোলার জন্য।

স্বামীর অজানায় মহিলা মাঠকর্মীর প্রলোভনে পড়ে অধিক লাভের আশায় জীবন বীমা খোলে অসহায় নারী গার্মেন্টস কর্মীরা, জমা রাখে সারা মাস ঘাম ঝড়ানো ফসলের একাংশ। এমনকি তারা নিজেরাও জানেনা কোথায় তাদের অফিস? এমন দৃষ্টান্ত পাওয়া গেছে আশুলিয়ার কাঠগড়া এলাকায় কয়েকটি পরিবারে। যার কারনে সৃষ্টি হয়েছে পারিবারিক কলহ।

আলামিন নামের একজন ব্যক্তি জানান, আমাদের অভাবের সংসার। শুষ্ঠভাবে সংসার পরিচালনার জন্য আমার উপার্জিত টাকার পাশাপাশি সাংসারিক আরও বিভিন্ন কাজে ব্যয়ের জন্য আমার স্ত্রীর কাছে সহযোগিতা নিয়ে থাকি কিন্তু পূর্বের ন্যায় টাকার পরিমাণ তিন ভাগের এক ভাগ হওয়ায়। তখন আমার মনে সন্দেহের সৃস্টি হয়। তার কারন আমার স্ত্রীর সাথে যারা একই অফিসে কাজ করে তাদের টাকার পরিমাণ দুইগুণ বেশি। বাকি টাকা কোন কাজে ব্যয় করেছে জানতে চাওয়ায় আমার সাথে বাকবিতন্ডার সৃস্টি হয় এবং আমার সাথে সংসার করবেনা বলে জানিয়ে দেয়। এই ঘটনা নিয়ে আমার সংসার ভাঙার পথে। এই নিয়ে আমি খুব পারিবারিক অশান্তির মধ্যে আছি।

অপর দিকে একই বাসার ভাড়াটিয়া প্রতিবেশি কামাল নামের আরেকজন ব্যক্তি জানান, আমিও একই ধরণের অশান্তির মধ্যে আছি। তবে আমার জানার বিষয় এই কোম্পানী স্বামীদের অনুমতি ছাড়া কেন বীমা খোলায়? কেন গরীব মানুষের সুখের সংসারে অশান্তির আগুণ জ্বালায়? ওদের কঠোর শাস্তি হওয়া দরকার! যাতে করে আর কোনদিন কোন গরীব মানুষের সংসারে অশান্তির আগুণ জ্বালাতে না পাড়ে। এরা ইসলামের নাম দিয়ে বেইসলামী কাজ করছে।

যাইহোক অবশেষে আমি ও আলামিন যুক্তি করে খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারি আমাদের স্ত্রীরা বীমা করেছে। যার অফিস তারাও চিনেনা এমনকি আমরাও চিনিনা।

এবিষয়ে ট্রাস্ট ইসলামী লাইফ ইনসিওরেন্স (জীবন বীমা) কোম্পানির ম্যানেজার(এ্যাডমিন এন্ড বিসিডি) মোজাম্মেল হকের মুঠোফোনে কল দিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পলিসির মালিক যদি তার স্বামীকে না জানায় তাহলে আমাদের কি করনীয় আছে? আপনি নিউজ করতে চাইলে করতে পারেন।


দৈনিক প্রজন্ম ডটকম /  জা.আ

মন্তব্য

উপর