logo
Floating 2
Floating

১৫ মে দেশে ফিরছেন ওবায়দুল কাদের


১৫ মে দেশে ফিরছেন ওবায়দুল কাদের

সব ঠিক থাকলে আগামী ১৫ মে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।  

শনিবার এ তথ্য জানিয়েছেন সিঙ্গাপুরে অবস্থানরত ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি। তিনি বলেন, ওইদিন বিকাল তিনটা ২০ মিনিটে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে দেশে ফিরবেন ওবায়দুল কাদের। 

আওয়ামী লীগের ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শরীর ঠিক রাখতে ডাক্তারের পরামর্শমতো নিয়মিত ব্যায়াম করছেন। তিনি দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন, যেন আগেরকার মতো ঈদকে সামনে রেখে রাজধানীর বাস টার্মিনালগুলো পরিদর্শন করতে পারেন, ঘুরমুখো যাত্রীদের খোঁজখবর নিতে পারেন। 

সিঙ্গাপুরে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে রয়েছেন তার সহধর্মিণী ইসরাতুন্নেসা কাদের, ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি, এপিএস মহিদুল হক, সেতু বিভাগের তথ্য কর্মকর্তা শেখ ওয়ালিদ ফাইয়াজ, ব্যক্তিগত কর্মকর্তা সুখেন চাকমা, ব্যক্তিগত ফটোগ্রাফার মনসুরুল আলমসহ ঘনিষ্ঠ কয়েকজন।

সূত্র জানায়, সিঙ্গাপুর মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের কাছেই একটি ভাড়া নেওয়া অ্যাপার্টমেন্টে থাকছেন ওবায়দুল কাদের। এখান থেকেই নিয়মিত তার চিকিৎসক ডা. ফিলিপ কোহের চেম্বারে চেকআপের জন্য যাতায়াত করছেন। গত ২ মার্চ ভোররাতে ঢাকায় নিজ বাড়িতে শ্বাসকষ্ট শুরু হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন ওবায়দুল কাদের। সেখানে দ্রুত এনজিওগ্রাম করা হলে তার হৃৎপিণ্ডের রক্তনালিতে তিনটি বড় ব্লক ধরা পড়ে। এর মধ্যে একটি ব্লক স্টেন্টিংয়ের (রিং পরানো) মাধ্যমে দ্রুত অপসারণ করেন চিকিৎসকরা। ৪ মার্চ বিকালে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুরে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। 

এদিকে সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, আগামী ২৫ মে দ্বিতীয় মেঘনা ও দ্বিতীয় গোমতী সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ওবায়দুল কাদের থাকবেন। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ভয়াবহ যানজট নিরসনে এই সেতু দুটি বড় ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। ওবায়দুল কাদের দেশে থাকা অবস্থায় বহুবার সরেজমিনে সেতু নির্মাণ কাজের অগ্রগতি দেখতে যেতেন। মাসখানেক আগে ওবায়দুল কাদেরের অনুপস্থিতিতেই দ্বিতীয় কাঁচপুর সেতু উদ্বোধন করা হয়। তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, ওবায়দুল কাদের সুস্থ হয়ে ফিরে এলে তাকে নিয়েই সেতু দেখতে যাবেন।

মন্তব্য

উপর