logo
Floating 2
Floating
শিরোনাম

এবার পুকুরে ভাসছে নবজাতকের লাশ, এ কেমন নিষ্ঠুরতা শুরু হলো!


এবার পুকুরে ভাসছে নবজাতকের লাশ, এ কেমন নিষ্ঠুরতা শুরু হলো!

মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলায় এক নবজাতকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (২৭ মে) সকাল ৮টার দিকে গাংনী থানা পুলিশের একটি দল উপজেলার ধানখোলা গ্রামের মুন্নাফ মিয়ার পুকুর থেকে লাশটি উদ্ধার করে।

স্থানীয় ব্যবসায়ী ইমরান হোসেন জানান, সকালের দিকে রাস্তা দিয়ে হাঁটছিলাম। এ সময় রাস্তার পাশে মুন্নাফ মিয়ার পুকুরের পানিতে একটি (কন্যা) বাচ্চার লাশ ভাসতে থাকতে দেখি। পরে আরো কয়েকজন এগিয়ে এসে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে বাচ্চাটিকে উদ্ধার করে।

গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্রনাথ সরকার (পিপিএম) জানান, লাশ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়েছে। আমরা ধারণা করছি কোন অবৈধ সম্পর্কের ফসল হিসাবে এ ঘটনাটি ঘটেছে। তবে ঘটনার সাথে জড়িতদের সনাক্ত করে আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

এরআগে, রাজধানীর মিরপুরে নিজের সদ্যোজাত সন্তানকে পাঁচতলা থেকে নিচে ফেলে হত্যা করেছে জান্নাতুন নেছা নামের এক কিশোরী। গত শনিবার (২৫ মে) মিরপুরের রূপনগর আবাসিক এলাকার ১০ নম্বর রোডের ১৮ নম্বর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই কিশোরী মাকে আটক করেছে। আটককৃত কিশোরী রাজধানীর মনিপুর স্কুলের ছাত্রী।

আটকের পর জান্নাতুন নেছা জানান, সে এবার মনিপুরি স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। তার সঙ্গে দূরসম্পর্কের এক চাচার প্রেমের সম্পর্ক হয়। তাদের অনৈতিক মেলামেশায় ওই বাচ্চাটি গর্ভে আসে। এ সম্পর্ক তার পরিবার মেনে নেবে না বলে বাচ্চাটিকে পাঁচ তলা থেকে ফেলে দিয়ে হত্যা করেছে সে।

প্রত্যক্ষদর্শী জানায়, দুপুর পৌনে ১২টার দিকে শিশুটিকে ওই বাড়ির বাথরুমের ভেন্টিলেটর দিয়ে নিচে ফেলে দেয়া হয়। নিচে পড়ার সাথে সাথেই শরীর ছিন্নভিন্ন হয়ে শিশুটি মারা যায়। খবর পেয়ে রূপনগর থানার এসআই পরিমল লাশটি উদ্ধার করেন।

তিনি সাংবাদিকদের জানান, শিশুটিকে যে বাথরুমের ভেন্টিলেটর দিয়ে নিচে ছুড়ে ফেলা হয়েছে, সেখানে রক্তের দাগ রয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে, বাচ্চাটি জন্মের সঙ্গে সঙ্গেই বাথরুমের ওই ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই বাসা থেকে জান্নাতুনকে আটকের পর সে স্বীকার করেছে, সে-ই আসলে বাচ্চাটির জন্ম দিয়েছে। জন্মের পরপরই বাথরুমের ভেন্টিলেটর দিয়ে সে নিজেই সদ্যোজাত সন্তানকে ফেলে দিয়েছে।

মন্তব্য

উপর