logo
Floating 2
Floating

সাতক্ষীরায় নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বিএসটিআই অনুমোদন ছাড়া চলছে বেকারি


সাতক্ষীরায় নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বিএসটিআই অনুমোদন ছাড়া চলছে বেকারি

সাতক্ষীরা শহরের ওলিতে গলিতে গড়ে উঠেছে কয়েকটি লাইসেন্স বিহীন বেকারি। বিএসটিআই নিবন্ধন না থাকলেও পণ্যের মোড়কে ব্যবহার করা হচ্ছে ভুয়া বিএসটিআই নম্বর। নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে চলছে এসব বেকারির খাবার তৈরির কাজ। শহরের তালতলা ঈদগাহ মোড় এলাকার বিসমিল্লাহ বেকারির স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘আমি কয়েক মাস যাবৎ এই বেকারির ব্যবসা শুরু করেছি। শুধু বিএসটিআই লাইসেন্স নেই, তাছাড়া ব্যবসার সকল কাগজ পত্র আছে’। তবে সত্যতা যাচাইয়ে তা প্রদর্শনে ব্যর্থ হয়ে বলেন, ‘প্রশাসনের লোক আসলে তাদেরকে কাগজ দেখাব। তিনি আরও বলেন, আমাদের বেকারি চালাতে কোন লাইসেন্স দরকার হয় না’। 

উল্লেখ্য, বিএসটিআই লাইসেন্স না থাকলেও বিসমিল্লাহ বেকারির পণ্যের মোড়কে একটি বিএসটিআই নম্বর দেখা গেছে, যার বিডিএস নং-৩৮৩। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোহাম্মাদ আলী এই প্রতিবেদকের সাথে তার মোবাইল থেকে একটি নম্বরে ফোন দিয়ে কথা বলতে বলেন। মোবাইলের অপর প্রান্তে সাংবাদিক পরিচয়দানকারী জনৈক ব্যক্তি বলেন, ‘আপনি আমাকে চেনেন? আমি সাতক্ষীরার একটি স্থানীয় পত্রিকায় কাজ করি। বেকারির মালিক আমার ভাই, নিউজ করার দরকার নেই’। 

এদিকে বিনেরপোতা এলাকায় আরও একটি লাইসেন্স বিহীন বেকারির সন্ধান পাওয়া গেছে। যেটি নিউ আব্দুল্লাহ ফুড নামে চলছে। ওই বেকারির স্বত্বাধিকারী মুজিবর রহমান জানান, ট্রেড লাইসেন্স, শ্রম অধিদফতর, ফায়ার সার্ভিস এবং স্যানিটারি লাইসেন্সের জন্য আবেদন করা হয়েছে। এখনও লাইসেন্স পাইনি। খুব শীঘ্রই বিএসটিআই লাইসেন্সের জন্য আবেদন করব। ব্যবসায়িক অনুমতি পত্র (লাইসেন্স) ছাড়া কীভাবে ব্যবসায় শুরু করা হয়েছে জিজ্ঞাসা করলে তিনি কোন উত্তর দিতে পারেননি। এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সদর নির্বাহী কর্মকর্তা দেবাশিষ চৌধুরী বলেন, দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য

উপর