logo
Floating 2
Floating
শিরোনাম

অপ্রতিরোধ্য পেঁয়াজের কেজি ২৭০ টাকা!


অপ্রতিরোধ্য পেঁয়াজের কেজি ২৭০ টাকা!

লাগামহীন পেঁয়াজ যেন অপ্রতিরোধ্য। কেউ থামাতে পারবে না এর মূল্যের গতি। প্রতিদিনই যেন নতুন নতুন রেকর্ড গড়ার পথে পেঁয়াজ। সপ্তাহের ব্যবধানে তিন দফায় কেজিতে ১০০ টাকা বেড়ে এখন পেঁয়াজের দাম ২৭০ টাকায় পৌঁছেছে। এর মধ্যে শেষ তিন দিনেই বেড়েছে ১০০ টাকা। পেঁয়াজের এমন দাম বাড়ায় ক্রেতাদের পাশাপাশি খুচরা বিক্রেতারাও অবাক।

ভাবে বাড়ছে পেঁয়াজেবর্তমানে ঝিনাইদহসহ সারাদেশে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫০-২৮০ টাকায়। বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) ঝিনাইদহের বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ১৯৫ থেকে ২০০ টাকা দরে। আজ তা ২৭০। ক্রেতারা বাজারে এসে পেঁয়াজের দাম শুনে ভ্রু কুঁচকাচ্ছেন। অনেকেই পেঁয়াজ না কিনেই চলে যাচ্ছেন। দোকানিদের বলছেন কটু কথা। বাজারে পেঁয়াজ বিক্রেতা লাল্টু মিয়া বলেন, চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম হওয়াই পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। গতকালের পেঁয়াজ আজ পর্যন্ত অর্ধেকও বিক্রি করতে পারিনি। তাই আজকে আর নতুন করে পেঁয়াজ কিনিনি। কারণ কাস্টমাররা দাম শুনে যা তা মন্তব্য করছেন। তিনি বলেন, ৭০০ টাকা কেজি দরে মানুষ খাসির মাংস কিনে খেতে পারছেন আর ২৭০ টাকা দরে পেঁয়াজ কিনতে এত কষ্ট কিসের!

বাজারে অন্য এক পেঁয়াজ বিক্রেতা মুরাদ হোসেন বলেন, পাইকারি বাজার থেকে প্রতি কেজি ১৭০ টাকা দরে পেঁয়াজ কিনে এনেছেন তিনি। এর সঙ্গে পরিবহন খরচ যোগ করে এখন তিনি প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২৭০ টাকায় বিক্রি করছেন। তিনি বলেন, কী করবো ভাই দাম বেশি পড়ছে। এখন পেঁয়াজ বিক্রিও কমে গেছে। আগে অনেক বেশি বিক্রি হতো। আজ সারাদিনে ১০ কেজি পেঁয়াজ বিক্রি করেছি।

এদিকে ক্রেতাদের অভিযোগ, বাজারে প্রচুর পেঁয়াজ রয়েছে তবুও প্রতিদিনই দাম বাড়ছে। বাজার মনিটরিং না করার কারণেই বিক্রেতারা ইচ্ছেমতো দাম বাড়াচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে মনে হচ্ছে নতুন পেঁয়াজ বাজার আসার আগে সাড়ে ৩০০ টাকা হয়ে যাবে। বাজারে কেনাকাটা করতে আসা এক নারী সুপিয়া বেগম বলেন, এক কেজি পেঁয়াজ কিনতেই যদি খরচ করতে হয় তাহলে অন্যান্য সদাই করব কীভাবে। পেঁয়াজের এত দাম আমার জীবনে দেখিনি।

মন্তব্য

উপর