logo
Floating 2
Floating
শিরোনাম

বেশি দামে লবণ বিক্রি করায় ১৪২ জন আটক, শতাধিক ব্যক্তিকে জরিমানা


বেশি দামে লবণ বিক্রি করায় ১৪২ জন আটক, শতাধিক ব্যক্তিকে জরিমানা

হঠাৎ পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় জনমনে হতাশা না কাটতেই এবার লবণের দাম বৃদ্ধির গুজব ছড়িয়ে গেছে সারা দেশে, শহরতলী ও তার আশপাশের এলাকাগুলোতে এই গুজবকে পুঁজি করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের চেষ্টা করছে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী।  গুজব ছড়িয়ে অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রির অভিযোগে সারাদেশে এ পর্যন্ত ১৪২ জনকে আটক করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) দুপুর থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত তাদের আটক করে পুলিশ। একই সঙ্গে শতাধিক ব্যবসায়ীকে জরিমানা করা হয়েছে।

সারা দেশের ন্যায় কেরানীগঞ্জ উপজেলায় এই গুজব ও সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে গোপন খবরের ভিত্তিতে উপজেলার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা ও কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশের সহযোগিতায় সকল হটবাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা হরা হয়। এ সময় ৩১ ব্যবসায়ীকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড প্রদান করেন।

এ ব্যাপারে অমিত দেবনাথ বলেন, উপজেলায় গুজব রটে লবণের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ খবরের ভিত্তিতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা এলাকায় বিভিন্ন হাট-বাজার ও মুদি ব্যবসায়ী বিপুল পরিমাণ লবণ গুদামজাত ও অধিক অর্থে বিক্রি করার অপরাধে ১৮ লবণ ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে ১৪ জন অসাধু ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয় বাকী চারজনকে অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। 

কারাদণ্ড প্রাপ্তরা হচ্ছেন- মো. ইসমাইল, মো. ইমরান, মো. মুরাদ, মো. সালাম, মো. জামাল, মো. নাদিম, মো. কুতুব উদ্দিন, মো. বাচ্চু, মো. কামাল, মো. জাহাঙ্গীর, মো. লাঁল চাঁন মো. সম্রাট মিয়া, মো. হাবিব, মো. আসলাম। অর্থদণ্ড প্রাপ্তরা হচ্ছেন- মো. রাকিব, মো. কাউসার, মো. মমিন ও মো. গুলজার হোসেন। 

অপরদিকে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার বিভিন্ন বাজার এলাকায় ও মুদি দোকানে অভিযান পরিচালনা করে ১৩ জনকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হচ্ছেন- জিনজিরা আমিরাবাগ এলাকার মাশরাফি এন্টারপ্রইজ থেকে মো. ইলিয়াস ও মো. কুদ্দুস, জিনজিরা বাজার সাইদ স্টোর থেকে মো. মাসুদ, মডেল টাউন এলাকার মুদি ব্যবসায়ী আব্দুল্লা স্টোরের মালিক মো. শরিফ, আটিবাজার ভাই ভাই স্টোর থেকে মো. সাহিদ, তাহের স্টোর থেকে আব্দুল মোতালেব, কালিন্দী ইউনিয়নের নেকরোজবাগ এলাকার আখি ব্রাইটিস স্টোর থেকে মো. জহুরুল ইসলাম, ব্রম্মণকিত্তা এলাকার নুর আলম স্টোর থেকে মো. নুর আলম, মনু ব্যাপারীর ঢাল এলাকার আবির স্টোর থেকে মো. মাসুদ, শাক্তা ইউনিয়নের মালঞ্চ এলাকার আব্দুল্লাহ স্টোর থেকে মো. রানা, রোহিতপুর এলাকা থেকে মো. ইমান আলী, মো. মোস্তাফা ও মো. মজিবর। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত প্রত্যেক অসাধু ব্যবসায়ীকে নগদ তিন হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত দেবনাথ আরো বলেন, ওইসব দোকানিরা লবণ মজুদ করে দেশের মধ্যে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে অতিরিক্ত দামে বিক্রি করছিল। ফলে ভোক্তা অধিকার আইনের ২০৯ এর ৪০ ধারা লঙ্ঘনের অপরাধে তাদের মধ্য থেকে ১৩ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড এবং ১৮ জনকে জরিমানা প্রদান করা হয়েছে। 

খুলনায় হঠাৎ করে লবণের দাম বৃদ্ধির গুজব প্রতিরোধ করতে মাঠে নেমেছে প্রশাসন। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) সন্ধ্যার পর থেকে বিভিন্ন বাজারে গুজব বন্ধে মাইকিং ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালানো হয়। সেই সাথে অতিরিক্ত লবণ পরিবহন করলে তা জব্দ ও এ ঘটনায় জড়িত কমপক্ষে ১৪ জনকে আটক করা হয়। 

এর মধ্যে গাইবান্ধায় ২৪ জনকে আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাঘাটা ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা থেকে তাদের আটক করা হয়। পাশাপাশি অনেক ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে।

গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, লবণের বাজার নিয়ন্ত্রণে গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার বোনারপাড়া বাজারে অভিযান চালিয়ে পাঁচজন ব্যবসায়ী ও দুই ক্রেতাকে আটক করা হয়। গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামারদহ, বালুয়া ও বাগদা বাজার থেকে ১৭ জনকে আটক করে পুলিশ। পুলিশের ভয়ে লবণের বাজার স্বাভাবিক হয়ে গেছে।

পাশাপাশি অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রি করায় বিকেলে সদর উপজেলার মুক্তারপুর এলাকায় অভিযান চালান ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় দুই দোকানিকে ১৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হ্যাপি দাস।

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, গুজব ছড়িয়ে অধিক দামে লবণ বিক্রির অভিযোগে মুন্সিগঞ্জ বাজার থেকে ১৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এর মধ্যে ১৩ জন ব্যবসায়ী ও একজন ক্রেতা রয়েছেন।

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে লবণের দাম বৃদ্ধির গুজব ও অতিরিক্ত দামে লবন বিক্রির অভিযোগে ৬ ব্যবসায়ীকে ২লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, সাতক্ষীরায় এখন পর্যন্ত ১০ জনকে আটক করা হয়েছে। লবণের মূল্য বৃদ্ধির গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তাদের আটক করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান।

পটুয়াখালী প্রতিনিধি জানান, গুজব ছড়িয়ে পটুয়াখালীতে অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রি করায় তিন দোকানদারকে আটক করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে দ্বিগুণ দামে লবণ বিক্রি করায় দুই ব্যবসায়ীকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পটুয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) শেখ বিল্লাল হোসেন।

নির্ধারিত দামের চেয়ে অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রি করায় বরিশালের গৌরনদী উপজেলা থেকে দুই ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার মাহিলাড়া বাজার থেকে তাদের আটক করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গৌরনদী মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মাহবুবুর রহমান।

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, শহরের নিতাইগঞ্জে দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে লবণের দাম বেড়ে যাবে প্রচারণা চালান আবদুল করিম। একই সঙ্গে ‘লবণের দাম বাড়বে’ ফেসবুকে এমন স্ট্যাটাস দিয়ে গুজব ছড়িয়ে দেন তিনি। এজন্য তাকে আটক করেছে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান।

লালমনিরহাট প্রতিনিধি জানান, জেলাটিতে অধিকমূল্যে লবণ বিক্রির দায়ে ১১ ব্যবসায়ী অর্থ দণ্ড ও কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। মঙ্গলবার রাতে ব্যবসায়ীদের অর্থ দণ্ড দেয়া হয়।

জামালপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে লবণ সংকটের গুজব ছড়ানোর অভিযোগে পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকেলে পৌরসভার আরামনগর বড়বাজার এলাকার বাঁধন স্টোরের সামনে থেকে তাদেরকে আটক করা হয়েছে।

এছাড়া বগুড়ায় ৪৪ জন, মাদারীপুরে দুজন, চুয়াডাঙ্গায় আটজন, নীলফামারীতে দুজন, লালমনিরহাটে তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

মন্তব্য

উপর