logo
Floating 2
Floating
শিরোনাম

নরসিংদীতে দুই ব্যবসায়িকে কুপিয়ে জখম করলেন সন্ত্রাসীরা


নরসিংদীতে দুই ব্যবসায়িকে কুপিয়ে জখম করলেন সন্ত্রাসীরা

নরসিংদী সদর উপজেলা শীলমান্দী এলাকায় ঢাকা- সিলেট মহাসড়কের পার্শ্বে গত ৩১ ডিসেম্বর রোজ মঙ্গলবার চাঁদার টাকা না পেয়ে মহাসড়কের পার্শ্বে কাগজের দোকানে সামনে এলোপাথারি ভাবে কুপিয়ে জখম করেন সজিব মিয়া, পিতা- হাজী মোসলেহ উদ্দিন, সোহাগ মিয়া, পিতা- মজলু মিয়া সহ প্রায় ৮ জন কে জখম করে। এ সময় ভিকটিমদের সাথে থাকা প্রায় ৪৩ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা। এ সময় আহত ব্যক্তিদেরকে নরসিংদী ১০০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে আনলে কর্তব্যরত ডাঃ তাদের গুরুত্বর হওয়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজে রেফার্ড করেন। ঢাকা হইতে উন্নত চিকিৎসার বর্তমানে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ভর্তি আছেন। ভিকটিম সজিব মিয়া সংবাদ কর্মী রুদ্র জানায়- আমি পাঁচদোনা বাজার হইতে আমার নিজস্ব দোকানে ফিরার পথে শিলমান্দী এলাকায় ভাঙ্গারী দোকানের সামনে আসা মাত্র সন্ত্রাসীরা আমাকে ও আমার সঙ্গে থাকা ভিকটিম সোহাগ আমাকে বাচাতে আসলে তাহাকেও এলোপাথারী ভাবে হকিস্টিক ও রাম দা দিয়ে আঘাত করিতে থাকে। এ পর্যায়ে আমাদের ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন সহ এলাকাবাসী আগাইয়া আসিলে সন্ত্রাসী চলিয়া যায়। এলাকা বাসী জানায় প্রায় সময় সন্ত্রাসী শামীম (২৮), পিতা- হানিফা, কাদির (৩০), পিতা- দুলু মিয়া, হারুন (২১), পিতা- কামাল মিয়া, তুহিন মিয়া (১৯), পিতা- জাহাঙ্গীর মিয়া, ফারুক (৫০) পিতা- সাফিজ উদ্দিন (সাফা), ও ইসমাইল (৩৫), পিতা- সাফিজ উদ্দিন (সাফা) গন অত্র এলাকার ভূমি জবর দখল সহ ইনটিজিং, চাঁদাবাসী, খুন-জখম সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। এ বিষয়ে কথা বলতে চাহিলে বা অভিযোগ করিলে প্রাণে মারার হুমকি দিয়ে থাকে সন্ত্রাসীরা।  


সংবাদ কর্মীগন এ বিষয়ে সন্ত্রাসী তুহিনের নিকট জানতে চাইলে জানায় উপ মহলের বড় ভাইয়েরা আইন প্রশাসন ম্যানেজ করবে। এ ঘটনার আমার কোন বলতে বা করতে হবে না।


ভিকটিম সজিবের ভাই আতাউর রহমান বাদী হয়ে উক্ত বিষয়ে নরসিংদী মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করিলে ঘটনার ৪ দিন পরও এ বিষয়ে কোন কার্যক্রম গ্রহণ করে নাই।


এদিকে সংবাদকর্মীরা শীলমান্দী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল বাকিরের সাথে যোগাযোগ করলে তাকে মোবাইল ফোনে পাওয়া যায় নাই।


এদিকে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দুজ্জামান সংবাদ কর্মীকে জানান বিষয়টি তদন্ত্র করে সঠিক আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অপরাধী যেই হোক না কেন আইনের বাইরে কেউ নন।

মন্তব্য

উপর