logo
Floating 2
Floating
শিরোনাম

করোনাভাইরাসে মৃত্যু ১৩২ জনের, চীন থেকে ফিরতে আগ্রহী বাংলাদেশিদের নিবন্ধন শুরু


করোনাভাইরাসে মৃত্যু ১৩২ জনের, চীন থেকে ফিরতে আগ্রহী বাংলাদেশিদের নিবন্ধন শুরু

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে চীনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩২ জনে দাঁড়িয়েছে। বুধবার দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

চীনের স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, বুধবার পর্যন্ত ৫ হাজার ৯৭৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ৩১ টি প্রদেশে ছড়িয়ে পড়েছে এ ভাইরাস এবং এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ১৩২। খবর সিনহুয়ার

এ ভাইরাসে আক্রান্ত মৃতদের বেশিরভাগ বয়স্ক ব্যক্তি এবং তাদের আগে থেকেই শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা ছিল।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন করোনাভাইরাস ঠেকাতে একটি বিশেষ চিকিৎসা নির্দেশনা প্রকাশ করেছে। 

এছাড়া ভাইরাসটির বিস্তার রোধে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা কঠোর করেছে চীন। 

চীনের হুবেই প্রদেশের যে উহান শহর থেকে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছিল সে শহরটি এখনও লকডাউন রয়েছে।

করোনাভাইরাস গুরুতর শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণ ঘটায় এবং এর কোনও নির্দিষ্ট ভ্যাকসিন নেই।

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঘটনায় চীন থেকে ফিরতে আগ্রহী বাংলাদেশি নাগরিকদের নিবন্ধনের কাজ শুরু করেছে বেইজিংয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস। তাঁদের ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশ কী ধরনের উড়োজাহাজ পাঠাবে, তা-ও জানতে চেয়েছে চীন। তবে চীনের সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক বিধিনিষেধের কারণে তাঁদের আগামী ৬ ফেব্রুয়ারির আগে দেশে ফেরানো যাবে না বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বাংলাদেশ এরই মধ্যে সর্বোচ্চ সতর্কতার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়েছে। এ জন্য দেশের সব কটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পাশাপাশি সমুদ্র ও স্থলবন্দরে স্ক্যানার বসানো হয়েছে। কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও মহাখালী সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে আলাদা ওয়ার্ড করা হয়েছে। এ ছাড়া সব জেলা হাসপাতালে আলাদা ওয়ার্ড করার জন্য সিভিল সার্জনদের চিঠি দেওয়া হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিকেল পর্যন্ত চীন থেকে সরাসরি বাংলাদেশে এসেছেন ২ হাজার ৮৭০ জন যাত্রী। তাঁদের কেউ এই ভাইরাসে আক্রান্ত বলে শনাক্ত হননি।

জানতে চাইলে চীনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাহবুব উজ জামান গতকাল সন্ধ্যায় বেইজিং থেকে মুঠোফোনে বলেন, দেশে ফিরতে আগ্রহী বাংলাদেশিদের নিবন্ধনের কাজ গতকাল শুরু হয়েছে। এ জন্য হুবেইয়ের প্রাদেশিক কর্তৃপক্ষের কাছে প্রয়োজনীয় আবেদনের ছক পাঠানো হয়েছে। এর পাশাপাশি সবশেষ পরিস্থিতির হালনাগাদ জানতে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখা হয়েছে।

ঢাকায় চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে বলেছিলেন, গত বছর বাংলাদেশের প্রায় ৫ হাজার শিক্ষার্থী চীনে পড়তে গেছেন। একই সময় বাংলাদেশের ৩৭ হাজার নাগরিক চীনে ভ্রমণ করেছেন।

চীন ছাড়াও জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, সিঙ্গাপুর, ভিয়েতনাম, তাইওয়ান, নেপাল, ফ্রান্স, সৌদি আরব, কানাডাসহ অন্তত ১৩টি দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলেছে।

মন্তব্য

উপর