logo
Floating 2
Floating

কম টাকায় ভারত হয়ে শ্রীলংকা ভ্রমণ


কম টাকায় ভারত হয়ে শ্রীলংকা ভ্রমণ

ইন্ডিয়ান ট্যুরিস্ট ভিসায় চেন্নাই হয়ে শ্রীলংকা ট্যুরের ব্যাপারে জানতে চেয়েছেন । তাঁদের জন্য, আমার ট্রাভেল রুট ছিলো এরকম:

ঢাকা – কলকাতা ( বাই রোডে )

কলকাতা – চেন্নাই ( বাই এয়ারে – ইন্ডিগোতে ৪৪০০/= টাকা , আপনার সময় থাকলে ট্রেনেও যেতে পারেন )

চেন্নাই – কলম্বো – ঢাকা ( বাই এয়ারে – শ্রীলংকান এয়ারলাইন্সে ১৩৭০০/= টাকা )

শ্রীলংকায় আমাদের জন্য অন এরাইভাল ভিসা , আপনি বন্দরনায়েকে এয়ারপোর্টে নেমে অন এরাইভাল ভিসা নিতে পারেন ২৫ ডলারে । আবার চাইলে ৫ মিনিটে দেশ থেকে ETA ভিসা এপ্লাই করে নিতে পারেন অনলাইনে । খরচ ২০ ডলার বা ১৭৫০/= টাকা ।

লিংক : https://www.eta.gov.lk/slvisa/visainfo/apply.jsp…

আমি কলকাতা এবং চেন্নাইয়ে মূলত এদিকে সেদিক ঘুরেছি জাস্ট ৭২ ঘণ্টা সময় মেলানোর জন্য , ৭২ ঘন্টার কম সময় ইন্ডিয়া তে থাকলে যাওয়া যাবে কিনা সে ব্যপারে জানা নেই ।

এবার আসি শ্রীলংকার প্রসঙ্গে :

শ্রীলংকার বিমানবন্দর মূলত নিগোম্ব শহরে অবস্থিত , যা কলম্বো মেইন সিটি থেকে ৩৭ কিলোমিটারের মতন দূরে ।

#১মদিন :

চেন্নাই থেকে শ্রীলংকার বিমান যাত্রার সময়ের ব্যবধান মাত্র ১ ঘণ্টা ২০ মিনিটের । এয়ারপোর্টে নেমেই মাত্র ৪০-৫০ সেকেন্ডে ইমিগ্রেশন শেষ করলাম । কিছুই জিজ্ঞেশ করে নি , শুধুমাত্র ETA চেয়েছে , ওটা দেয়া মাত্রই সিল মেরে দিয়ে দিয়েছে । এয়ারপোর্ট থেকে বের হতেই , মানি এক্সচেঞ্জ পাবেন অনেকগুলো । সব দোকানে এক ই রেট , যেকোন একটা থেকে ডলার চেঞ্জ করে নিতে পারেন । আমি মাত্র ১০০ ডলার চেঞ্জ করে ১৭৯৬০ শ্রীলংকান রুপি পাই , উল্লেখ্য বাংলাদেশের ১ টাকা - শ্রীলংকার ২ রুপির কাছাকাছি । মানি এক্সচেঞ্জ করে সামনে এগিয়ে , সিম কেনার পালা । শ্রীলংকায় বেশিরভাগ মানুষ DIALOG সিম ব্যবহার করে , এটা নিয়ে নিলাম ১৫০০ রুপিতে ( ২০ জিবি ডাটা + ৫০ মিনিট লোকাল কল ) ।

এরাইভাল টার্মিনাল থেকে বের হয়ে , হাতের বাম পাশ দিয়ে একটু সামনে এগুলেই এসি বাস পেয়ে যাবেন ২০০ রুপিতে , কলম্বো পর্যন্ত । বাস নাম্বার ১৮৭ । নন এসি বাসের নাম্বার ও সেইম , ভাড়া ১০০-১৫০ রুপির মতোন ।

প্রায় ১.১০ মিনিট পর কলম্বো সিটিতে পৌছাই । মূলত কলম্বো ফোর্ট রেইলওয়ে স্টেশনের আশেপাশেই সবাই থাকে কলম্বো তে । এখানে কাছেই পেত্তাহ মার্কেট , যা অনেকটা আমাদের গুলিস্তানের মত লেগেছে আমার কাছে । তো আমি শুধু প্রথম দিনের হোস্টেল বুকিং করে যাই , বুকিং ডট কমের মাধ্যমে । ৫০০ মি. হেটে চলে যাই হোস্টেলে – কলম্বো ডাউনটাউন মাংকি হোস্টেল । খরচ পড়ে ১০৮০ রুপি বা ৫৪০ টাকা ( ব্রেকফাস্ট ইনক্লুডেড ) । হোটেলে ব্যাগ রেখে , শাওয়ার নিয়ে বের হয়ে যাই লাঞ্চের জন্য আর ঘুরতে । রেলস্টেশনের কাছেই অনেক খাবারের দোকান আছে , ১০০ রুপি থেকে শুরু করে ৩০০ রুপি পর্যন্ত ভরপেট খেতে পারবেন । তবে , আমি প্রথমদিকে খাবার নিয়ে একটু সমস্যা ফেইস করেছিলাম – খেতে ভাল্লাগছিলোনা । পরে একজনের কথামতো , মসজিদ খুঁজে নিয়ে মসজিদের পাশে হোটেল থেকে ২১০ রুপিতে বিফ বিরিয়ানি , ডাল , সালাদ আর কোক খাই । খাওয়াদাওয়ার পর্ব শেষ করে চলে যাই , কলম্বো গল ফেইসে । যাওয়ার জন্য উবার মোটো ইউজ করি । উবার মোটো কাছাকাছি ডিস্টেন্সে খুব ই চিপ । ২১ রুপি লাগে ৩ কিলোমিটারে । গল ফেইস বিচে বিকাল কাটিয়ে দেই , আর অসাধারণ মনোমুগ্ধকর ঘুড়ি উৎসব দেখতে থাকি । রাস্তার একপাশে বড় বড় অট্টালিকা , অন্যপাশে ঢেউয়ের শব্দে প্রত্যেকটা মুহুর্ত অসাধারণ লাগছিলো । বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামতে থাকলে , পায়ে হেটে হেটে কলম্বো এ রাস্তা থেকে ঐ রাস্তা হাটতে থাকি । মানুষের সাথে কথা বলি , তাঁদের জীবন কেমন যাচ্ছে সেসব নিয়ে আড্ডা দেই । এসব করতে করতে গুগল ম্যাপ ধরে হেটে হেটে চলে আসি কলম্বো ওল্ড লাইট হাউজের কাছে , সেখানে কতক্ষণ ঘুরে রাতের খাবার ২৭০ রুপিতে খেয়ে হোটেলে চলে আসি ।

১ম দিনের খরচ : 1500+200+1080+210+21+270= 3281 LKR বা ১৬৪১ টাকা ।

#২য়দিন :

যেহেতু আমার কাছে ঘোরাঘুরির জন্য মাত্র ৫ দিন সময় ছিলো তাই বেছে নিয়ে শুধুমাত্র কোস্টাল এরিয়া গুলো ঘুরে দেখার , তাড়াহুরো করে অনেকগুলো প্লেস কভার করতে চাইনি । ২য় দিন সকালে হোটেলে ফ্রি ব্রেকফাস্ট করে বেড়িয়ে পড়ি গলের জন্য । কলম্বো ফোর্ট রেইলওয়ে স্টেশন থেকে গলে যাওয়ার জন্য আপনাকে কলম্বো – মাতারা লাইনের ট্রেন ধরতে হবে । আর শ্রীলংকার ট্রেনে ১ম ক্লাস ছাড়া কোন সিট রিজার্ভের সিস্টেম নেই । সুতরাং আপনি আগে গিয়ে সিট না পেলে আপনাকে দাড়িয়েই যেতে হবে । আমি কলম্বো থেকে গলে যাওয়ার জন্য ২য় ক্লাসের একটি টিকেট নেই ২৪০ রুপিতে , অন স্পট ই টিকেট পাবেন ।

ট্রেনের বিস্তারিত সময়সূচী : https://www.seat61.com/SriLanka.htm

গলে পৌছালাম ২ ঘণ্টা ২০ মিনিট পর । গল সহ এই সাউদার্ন পার্টের প্রত্যেকটা শহর ই বিচের পাশে । এখানে প্রত্যেকটা শহর ই ঘুরে ঘুরে দেখার মতন । আমি গল স্টেশনে নেমেই হাতের বা পাশে একটু হেটে বাস স্টেশনে গেলাম , সেখানে ২৫ রুপিতে ৩৮৮/১ বাসে চলে গেলাম পিট্টাওয়ালাতে । এখানে মূলত হোস্টেল গুলো একটু চিপে পাওয়া যায় । আমার হোস্টেল খরচ লেগেছিলো ৯৮০ রুপি বা ৪৪০ টাকা । হোস্টেল টা খুব ই জোশ ছিল এক কথায় , আমি ভিডিও এড করবো নিচে । হোস্টেলে ব্যাগ রেখে লাঞ্চ করলাম পাশের একটা হোটেলে , এগ রোটি টাইপের একটা খাবার অনেকটা আমদের পরোটা ডিমের মতো । ওদের খাবারের টেস্ট আমার কাছে পানশা লেগেছে , বারবার ই আলাদা করে মরিচ চেয়ে খেয়েছি । খাবারের খরচ হয়েছে ২০০ রুপি । খাওয়া শেষে , হোটেলে সাগরের উত্তাল বাতাস খেতে খেতে চিন্তা করে হিক্কাডুয়া যাওয়ার । হোস্টেলের বাইরেই বাস স্টপে দাড়ালেই বাস পাওয়া যায় , বাস খুব ই ফ্রিকোয়েন্ট । মাত্র ৪০ রুপিতে চলে যাই হিক্কাডুয়াতে , এটি মূলত বিগেনারদের সার্ফিং এর জন্য বিখ্যাত । হিক্কাডুয়ার ঘণ্টা খানেক অবস্থা করে , বিকালে ডিরেক্ট চলে আসি গল ফোর্টে – বাসে ৬৫ রুপিতে । আহ! গল ফোর্ট! গল ফোর্টে সৌন্দর্য্য সত্যিই চমৎকার । গল ফোর্ট লাইট হাউজ , গল ক্রিকেট স্টেডিয়াম ছাড়া গলে মূলত আর তেমন দেখার কিছু নেই । রাতে গল সেন্ট্রালে KFC তে চিকেন বিরিয়ানি খাই ২৩০ রুপিতে , খেয়ে ২৫ রুপিতে বাস ধরে চলে আসি হোস্টেলে । রাতে হোস্টেলে রুমে ফিরে যেতে ইচ্ছাই করছিলোনা , এতো সুন্দর বাতাস আর পরিবেশ দেখে           

 ৩য় দিন :

সকাল সকাল সমুদ্রের ঢেউয়ের শব্দে ভাঙে! হোস্টেল থেকে ৮০ মিটার সামনেই লোকাল একটা বাসায় ১০০ রুপিতে ডিম পরোটা , চা আর নারিকেলের কিছু রকটা খেলাম । খাওয়া শেষ করেই উনাওয়াতুনার উদ্দেশ্যে ছুট। হোস্টেল থেকে একটু সামনের বাস স্টপ থেকে ৩৮৮/১/২/৩ সব গুলো বাস ই যায় পিটাওয়াল্লে থেকে গল সেন্ট্রালের উদ্দেশ্যে । ভাড়া মাত্র ২৩-২৫ রুপি । গল সেন্ট্রাল থেকে ৩৫০ নাম্বার বাসে উঠে গেলে ৪-৫ কিলোমিটার পথ পেরুলেই উনাওয়াতুনা - ভাড়া নেবে ২৩ রুপি । উনাওয়াতুনা'তে মূলত তিনটি বিচ , এখানে ট্যুরিস্টদে বেশ ভালো আনাগোণা আছে । জাংগেল বিচ , উনাওয়াতুনা বিচ এবং এঞ্জেল বিচ । এর মধ্যে জাংগেল বিচটা বেশ সুন্দর আর স্নিগ্ধ , সবগুলো বিচ ই একটা আরেকটা থেকে হাটার দুরত্ব । গুগল ম্যাপে নেভিগেট করে ঘুরে ঘুরে দেখবেন । দুপুর পর্যন্ত সময় সেখানে অবস্থান করে বাসে আবার চলে আসি , গল সেন্ট্রালে । হেটে হেটে দেখি গল শহর । দুপুরে ট্রেডিশনাল খাবার খাই ২৩০ রুপিতে । খাবার খেয়ে ২৫ রুপিতে চলে আসি হোস্টেলে। পুরো বিকেলটা সমুদ্রের পাশে বিচের বেঞ্চে বসে বাতাস খেতে খেতে কাটিয়ে দিই , সত্যিকার অর্থে কাপলদের স্বর্গরাজ্য এই গল সহ পুরো কোস্টাল এরিয়া । তাছাড়া যারা এলকোহল পছন্দ করেন তারাও বেশ মজা পাবেন এই গলে । রাতের খাবার লোকাল ওই আন্টির বাসায় খাই ২৫০ রুপিতে । আর হোস্টেল খরচ

৩য় দিনের খরচ : ১০০+২৫+২৩+২৩+২৩০+২৫+২৫০+৯৮০=১৬৫৬ LKR বা ৮২৮ টাকা

#৪র্থদিন :

৩য় দিন রাতেই প্ল্যান করে রাখি আগামীকাল সকালে পিটিওয়েল্লা গল থেকে ৪১ কিলোমিটার দূরের মিরিসায় যাবো । সকাল সকাল উঠেই ১৩০ রুপিতে নাস্তা করে চলে যাই , বাস স্টপে । ২৫ রুপিতে গল সেন্ট্রালে গিয়ে , গল - মাতারা লাইনের ৩৫০ নাম্বার বাস খুজতে থাকি । এই বাস ই যাবে মিরিসা পর্যন্ত । মিরিসা থেকে মাতারার দুরত্ব ৭-৮ কি. মি । গল থেকে মিরিসা ভাড়া নিলো ৮০ রুপি । মিরিসা নিয়ে একটু বলে নেই , শ্রীলংকার নাইটলাইফ বলতে যা বোঝায় তা হচ্ছে এই মিরিসা বিচ। ফ্রেন্ডদের সাথে জমায়ে আড্ডা আর কাপল হয়ে বিচের পাশে ক্যান্ডেল লাইট ডিনার সহ সব ধরণের ব্যবস্থাই আছে এই মিরিসায় । এই এলাকা পুরোটাই ট্যুরিস্ট এরিয়া , ট্যুরিস্ট এরিয়া হওয়ায় খাবার দাবাড়ের দাম একটু বেশি । যাকগে , ১ ঘন্টা ১৫ মিনিট পরে মিরিসা পৌছে হোস্টেল খুজে নিলাম । হোস্টেলে ব্যাগ রেখেই চিপ খাবার খুজতে থাকি , একটু সামনেই স্পাইসি রোটি হাট নামে একটা ফুড শপ থেকে শ্রীলংকার সর্বেসর্বা টাইপ খাবার 'কত্তু' খেয়ে নিলাম ২৪০ রুপিতে । খাওয়া শেষ করে ৪০০ মিটার হেটেই চলে গেলাম বিচে - যেতে যেতে পথে ৫০ রুপিতে কমলা নারিকেল খাই , সন্ধ্যা পর্যন্ত সেখানে অসাধারণ সময় পার করে হোস্টেলে এসে লবিতে হোস্টেল মেইটদের সাথে আড্ডা দেই । জীবনে ১ম বার ব্যতিক্রম অভিজ্ঞতার স্বীকার হই । ৫ জনের বাংক বেডে (মিক্সড রুম) , ৪জন বিদেশী নারীর সাথে একা এক রুম শেয়ার করতে হয়েছে  যদিও পুরো রাত লবিতে সবার সাথে আড্ডাতেই সময় কেটেছে । রাতে খাবার খাই ১৮০ রুপিতে । হোস্টেল খরচ লাগে ১১০০ রুপি বা ৫৫০ টাকা ।                  

৫ম দিন :

রাতে এসে আড্ডা দিয়ে খুব জম্পেশ একটা ঘুম দিয়ে সকাল ৮ টায় ঘুম থেকে উঠলাম । হোস্টেলেই ছিলো ব্রেকফাস্ট ,  কেমন আজব একটা খাবার দিলো ব্রেকফাস্টে । সেমাইয়ের উপর ডাল সাথে কুড়ানো নারিকেলের তৈরি ছাতু টাইপের কিছু । কোনমতে হজম করে ,  নিজে নিজে কিচেন থেকে চা বানিয়ে নিলাম ( সব উপকরণ কিচেনেই রেডি ছিলো  ) । যেহেতু আমার কোস্টাল লাইনের ঘুরাঘুরি মোটামুটি শেষ ,  এবার ফিরে যাবো কলম্বোতে । পথে আহাংগামা পড়বে সেটা একটু দেখে যাবো । তো ব্রেকফাস্ট পাঠ চুকিয়ে ব্যাগ প্যাক সাথে নিয়ে ১০০ মিটার সামনে বাস স্টপেজের দিকে রওনা দিলাম । যে বাস গল থেকে এসে ছিলাম অর্থাৎ ৩৫০ নাম্বার বাস  - সে বাসেই আহাংগামা হয়ে গল যাবে । তো বাসে উঠে ৫০ রুপি দিয়ে আহাংগামা চলে গেলাম । এইটাও একটা সিনিক বিচ । অনেকে এইদিকেও সার্ফিং করে । কিছুক্ষণ এখানে ঘুরে চলে গেলাম গলের উদ্দেশ্যে ,  ওদের বাস স্টপেজে দাড়ালে মোটামুটি কমবেশ সব লোকাল বাস ই থামে । গলে পৌছলাম ২০ রুপিতে । গল সেন্ট্রাল বাস স্টেশন থেকে কলম্বো যাওয়ার এসি / নন এসি দুই ধরণের বাস ই আছে । বাসের নাম্বার সেইম ,  ২ । এসি বাসের ভাড়া ৩৩৫ রুপি । নন এসির বাসের ভাড়া ২০০ রুপি । ওইদিন একটু গরম থাকায় এসি বাসেই উঠলাম । এই গল থেকে কলম্বো যাওয়ার ট্রেইন রুট টা যেমন মনকে হাওয়ায় ভাসিয়ে নেয়ার মতোন ,  ঠিক তেমনি বাসগুলোও বিচের রোডগুল ঘেসে ঘেসে চলে  - এ এক চমৎকার অনুভূতি । পুরো ২ ঘন্টা ৫০ মিনিট পর পৌছালাম কলম্বো সেন্ট্রাল ফোর্ট রেইল ওয়ে স্টেশনে ,  আগে থেকেই হোস্টেল বুক রেখেছিলাম ১০৮০ রুপিতে । সেখানে গিয়ে ব্যাগ রেখে - গোসল সেড়ে চলে গেলাম লাঞ্চের খোজে । হোটেল কোয়াস থেকে ভাত ,  গরুর মাংস ,  ডাল ,  রকমের ভর্তা দিয়ে পেট শান্তি করলাম । খাবার শেষ করতে করতেই বিকাল গড়িয়ে প্রায় সন্ধ্যা হচ্ছে । এই এলাকাতে মানুষজন আসলে ৮ টার পর পুরো ঘুমে থাকে ,  নিশ্চুপ হয়ে যায় সব । বিকেল ৫ টার দিকে রাস্তায় ঢল নামে অফিস থেকে বাড়ি ফেরা মধ্যবয়স্ক নাগরিকদের । সন্ধ্যার দিকে চলে গেলাম পেত্তাহ মার্কেটে ,  হাটার দুরত্ব । পেত্তাহ মার্কেটে কিছুক্ষণ ঘুরে স্যুভেনিয়ার খুজতে লাগলাম । আমি এর আগে মালোয়শিয়া ভ্রমণ করেছি তবে আমার কাছে শ্রীলংকান স্যুভেনিয়ার এর দাম অনেক অনেক বেশি লেগেছে । ফ্রিজ ম্যাগনেটের দাম ২০০ রুপি থেকে শুরু হয় মানে ১০০ টাকা । যাকগে ,  ওখান থেকে চলে গেলাম কিছু চকলেট আর কফি কিনতে সুপার শপে । আমি Aprico Super Center আর Kells এ ঘুরেছি ,  বেশিরভাগ প্রোডাক্ট ই ওরা ইন্ডিয়া থেকে ইম্পোর্ট করে বেশি দামে বিক্রি করে । কেনাকাটা শেষ করে গরম গরম পরোটা ,  গরু ভোনা,  চিকেন কারি আর কোক ৩০০ রুপিতে খেয়ে হোস্টেলে ফিরে আসি ।


৫ম দিনে সর্বমোট খরচ : ৫০+২০+৩৩৫+১০৮০+৩০০=১৭৮৫LKR বা ৮৯২ টাকা

৬ষ্ঠ দিন :

শ্রীলংকা ভ্রমণের আজকেই শেষদিন । আমার ফ্লাইট আগামীকাল (১৫ই ফেব্রুয়ারি) সকাল ৭.৪৫ মিনিটে । এয়ারপোর্টে যাওয়া লাগবে অন্তত ৪.৪৫ বা ৫ টার দিকে । আর এয়ারপোর্ট যেহেতু কলম্বো শহর থেকে মোটামুটি ১ ঘন্টার রাস্তা তাই আগে আগেই রওনা দিতে হবে । এয়ারপোর্ট নিগোম্ব শহরে অবস্থিত ,  অনেকে আগের রাত নিগোম্বতে থাকে । আমি ঠিক করলাম কলম্বোতেই থাকবো ,  আজকে সকাল ১১ টায় হোটেলে চেক আউট করে ব্যাগ এখানে রেখে সারাদিন বাইরে ঘুরবো - আর রাতে একটু ভাগে এয়ারপোর্ট এ চলে যাবো । কিছু খরচ বেচে যাবে । সকালে কম্পলিমেন্টারি ব্রেকফাস্ট করে ব্যাগ হোস্টেলে রেখে বের হয়ে গেলাম ঘুরতে ,  শুরুতেই চলে গেলাম ডাচ হসপিটালে  ,  কলম্বো ক্লক টাওয়ার আর ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের খুব কাছেই । শ্রীলংকান ক্রিকেটার কুমার সাংগাকারার বিখ্যাত রেস্টুরেন্ট 'মিনিস্ট্রি অব ক্র‍্যাব' এখানে । বেশ কিছুক্ষণ এই আভিজাত্য উপভোগ করে চলে গেলাম পেত্তাহুতে রেড মস্ক দেখতে । ঘুরে এসে জুম্মার নামাজ পড়লাম ,  হোটেল কসওয়ার পাশের মসজিদে । এখানে জুম্মার নামাজে পুলিশ পাহাড়া থাকে। কোন ব্যাগ নিয়ে ভেতরে যাওয়া যাবেনা । নামাজ পড়ে বের হয়ে ,  হোটেলের জুম্মার স্পেশাল ডিশ চিকেন বিরিয়ানি খেয়ে নিলাম ৩৪৫ রুপিতে । খাওয়া দাওয়া করে চলে গেলান ,  ওয়াল গল ফেইস শপিং মলে উবার মোটোতে ৩৭ রুপিতে । শ্রীলংকার অন্যতম প্রধান শপিং মল এটি । এখানে ঢোকার সময় জ্বর মাপলো , ভেতরে ঢুকে অনেকটা যমুনা ফিউচার পার্ক টাইপ লাগছিলো । যেহেতু আমার লক্ষ্য ছিলো ঘুরে ঘুরে সময় কাটানো আর ওইদিন ভালোবাসা দিবস থাকায় বেশ জমজমাট ছিলো ওয়ান গল ফেইস । একটু রোদ কমে গেলে বেরিয়ে চলে গেলাম ,  বিচের কাছে । বেশ কিছু শ্রীলংকা ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া ছেলে মেয়ের সাথে আলাপ আলোচনা হচ্ছিলো আড্ডার ছলে । বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যে হলে চলে গেলাম সেন্ট্রাল রেইলওয়ে স্টেশনে  ,  সেখান থেকে কমিউটার ট্রেণে ২০+২০ রুপিতে এক পাশ আরেক ঘুরলাম বেশ কিছুক্ষণ । রাতে লোকাল এক রেস্টুরেন্ট থেকে কত্তু ২২০ রুপিতে খেয়ে ,  হোস্টেলে এসে কিছুক্ষণ রেস্ট নিলাম । যেহেতু হোস্টেল বুক করিনি - লবিতেই বসে ছিলাম । রাত ১২ টার দিকে 'পিক মি' (ফ্রি রাইড) তে টুকটুক কল করে ব্যাগ প্যাক নিয়ে ১ কিমি পথ আসলাম বাস স্টেশনে । বাস স্টেশনে কলম্বো ফোর্ট রেইলওয়ে স্টেশনের উল্টো পাশেই । রুট নাম্বার ১৮৭ এর লোকাল বাসে উঠলাম ,  ভাড়া ১৫০ রুপিতে ঘন্টা দুয়েক পড়ে পৌছে গেলাম এয়ারপোর্টে । লোকাল বাস হওয়ায় সময় বেশি লেগেছিলো । তবে আমার কাছে এই জার্নি ভালো লাগেনি ,  এসি বাস পাইনি বিধায় এটায় উঠেছিলাম যদিও । আর এই একই রুটে আপনি উবার বা পিকমি ব্যবহার করে টুকটুক ডাকলে খরচ পড়বে ১২০০-২০০০ রুপি ,  গাড়িতে ১৭০০ রুপি থেকে শুরু ।

৬ষ্ঠ দিনে খরচ : 

৩৪৫+৩৭+৪০+২২০+১৫০= ৭৯২ রুপি বা ৩৯৬ টাকা ।

৭ম দিন :

সকাল ৭.৪৫ এর শ্রীলংকান এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে বাংলাদেশে এসে ১১.৩৫ এ পৌছালাম ।

** ৬দিনে সর্বসাকুল্যে শ্রীলংকায় মোট খরচ ১১১২৪LKR বা ৫৫৬২ টাকা **

_________

ভারতে তিনদিনের খরচ : ৪৫২০/= টাকা  (কলকাতা এবং চেন্নাইয়ে ৩দিন)

শ্রীলংকায় খরচ :  ৫৫৬২/= টাকা

এয়ার ফেয়ার :

কলকাতা-চেন্নাই: ৪৪০৪/=
চেন্নাই - কলম্বো - ঢাকা : ১৩৭০০/= (ট্রিপ এন কেয়ার ওয়েব সাইট থেকে, শ্রীলংকান এয়ারলাইন্স )

** কলকাতা থেকে চেন্নাই বাই রোডে গেলে খরচ আরো কমে যাবে **

সম্পূর্ণ খরচ: ২৮১৮৬/= টাকা

মন্তব্য

উপর