logo
Floating 2
Floating

যশোর জেনারেল হাসপাতালে আইসোলেশনে দুই নারী।


যশোর জেনারেল হাসপাতালে আইসোলেশনে দুই নারী।

যশোর সদর উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের এক নারীকে (২৫) এবং বিজয়নগর গ্রামের স্কুল পড়ুয়া এক ছাত্রীকে (১৫) করোনা সন্দেহে হাসপাতালের আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এম আব্দুর রশিদ জানান, সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাহাদুরপুর গ্রামের এক নারী কাশি, সর্দি, জ্বর, গলাব্যাথা শ্বাষকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে আসেন। এ সময় করোনায় আক্রান্ত সন্দেহ হওয়ায় তাকে আইসোলেশন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে।

হাসপাতালের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, ওই নারী কয়েকদিন আগে একই রোগে চিকিৎসার জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে আসেন। তখন তাকে মহিলা মেডিসিন বিভাগে ভর্তি করার জন্য বলা হয়। সেখান থেকে তিনি পালিয়ে যান।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলিপ কুমার রায় জানান, সন্ধ্যায় এক নারী চিকিৎসা নিতে এলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী সন্দেহে তাকে আইসোলেশন ইউনিটে পাঠানো হয়। এখন ঢাকা আইইডিসিআরের সঙ্গে যোগাযোগ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে।

এলাকাবাসী জানান, সকাল থেকে বাহাদুরপুর গ্রামে এক নারী করোনা আক্রান্ত হওয়ার গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় ওই নারী ঘরের মধ্যে লুকিয়ে থাকেন। সন্ধ্যার পর গোপনে বাড়ি থেকে বের হয়ে পরিবারের সদস্যদের সহযোগিতায় হাসপাতালে চলে আসেন। তিনি যশোর শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চাকরি করতেন।

অপরদিকে, জরুরী বিভাগের চিকিৎসক দেলোয়ার হোসেন জানান,কাশিমপুর ইউনিয়নের বিজয়নগর গ্রামের এক স্কুল ছাত্রী (১৫) দুই দিন ধরে হাসপাতালের মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন।আজ সোমবার রাত ১০ টার দিকে তাকে করোনা রোগী সন্দেহে আইসোলেশন ইউনিটে পাঠানো হয়।

মন্তব্য

উপর