logo
Floating 2
Floating

বশেমুরবিপ্রবিতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করছে এসিসিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা


 বশেমুরবিপ্রবিতে   হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করছে এসিসিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা

ফয়সাল জামান ফাহিম, 
বশেমুরবিপ্রবি থেকে :-

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ থেকে বাঁচতে জেলা প্রশাসকের (ডিসি) সহায়তায় প্রায় ৩৫ লিটার হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করেছে গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) এপ্লাইড কেমিস্ট্রি এন্ড কেমিক্যাল ইন্জিনিয়ারিং (এসিসিই) বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

   গত সোমবার (২৩ মার্চ) বিভাগটির নিজস্ব ল্যাবে চারজন শিক্ষক এবং দশজন শিক্ষার্থীর একটি টিম এ হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করেছে।

এ বিষয়ে এসিসিই বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মোঃ কামরুজ্জামান বলেন, “করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ক্রমশ বেড়ে চলছে এবং ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের চাহিদাও বেড়ে চলছে। অনেক জায়গায় হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সংকটও দেখা দিয়েছে। এসকল কারণে জেলা প্রশাসনের সহায়তায় আমাদের পক্ষ থেকে এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা”

এসময় তিনি আরো বলেন, “হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় উপাদান জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে সরবরাহ করা হয়েছে। আমরা মূলত তাদের ল্যাব এবং জনবল সহায়তা প্রদান করেছি”

স্যানিটাইজার তৈরিতে অংশগ্রহণকারী এসিসিই বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শাহাদাত হোসেন বলেন, “বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্বেই করোনা ভাইরাস ক্রমশ ভয়াবহ হয়ে উঠছে, গোপালগঞ্জেও অনেকে হোম কোয়ারেন্টেইনে রয়েছে। এরূপ পরিস্থিতিতে স্বল্প পরিসরে হলেও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধমূলক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করতে পেরে কিছুটা হলেও স্বস্তি পাচ্ছি। আমরা প্রত্যেকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে এই ভাইরাস প্রতিরোধে এগিয়ে আসবো এবং ভাইরাসের এই ভয়াবহতা থেকে দ্রুত মুক্তি পাবো এটাই প্রত্যাশা।”

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস ক্রমশ ভয়াবহ রূপ ধারণ করছে। রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) তথ্য অনুযায়ী এখন পর্যন্ত দেশে ৩৩ জনকে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে এবং তিন জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে।

মন্তব্য

উপর