logo
Floating 2
Floating

রাতে মসজিদে একযোগে আযান জনমনে আতঙ্ক: ভূমিকম্প, মৃত্যু গুজব


রাতে মসজিদে একযোগে আযান জনমনে আতঙ্ক: ভূমিকম্প, মৃত্যু গুজব

করোনা থেকে বাঁচতে রাতে প্রায় মসজিদে আযান দেয়া হয়েছে। রাত ১০টার পর মসজিদে একযোগে আযান শুরু হয়। এতে হতবাক হয়ে যান সাধারণ মানুষ।

বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) রাত ১০ টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত বিভিন্ন মসজিদে মসজিদে এ আজান দেয়া হয়।

পূর্ব ঘোষণা ছাড়া আকস্মিক এ আযানের ঘটনায় সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। স্থানীয়রা একে অপরকে ফোন করে জানতে চান করোনায় কেউ মারা গেছেন কিনা। আর এই কারণেই আযান দেয়া হচ্ছে কিনা। কি কারনে আযান দেওয়া হলো।   

মসজিদের মুয়াজ্জিনা বলেন, দুর্যোগের মধ্যে এভাবে আযান দেয়া মোস্তাহাব। আর একারণেই আমরা এভাবে আযান দিয়েছি।

এছাড়া ভূমিকম্প হবে, আল্লাহর গজবসহ কাল্পনিক নানা গুজব ছড়িয়ে পড়ে  বিভিন্ন  এলাকায়।

তবে ইসলামিক ফাউন্ডেশন আযান দেয়ার ঘোষণা দেয়।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে হবিগঞ্জের  চুনাররুঘাট সদরে জড়ো হয়ে 'আল্লাহু আকবার' ধ্বনি উচ্চারণ করে মিছিলও করেন একদল লোক। পরে প্রশাসনের লোকজন গিয়ে তাদের থামিয়ে বাড়িতে পাঠায়। 

কক্সবাজারের এলাকায় রাতের মধ্যে ভূমিকম্প আঘাত হানতে পারে এমন গুজবের ওপর ভর করে এসব করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন এ বিষয়ে গভীর রাতে তাঁর নিজের ফেসবুক আইডিতে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে জনগণকে অনুরোধ করেছেন-‘গুজবে কান দেবেন না। নিজ ঘরে থাকুন, করোনা প্রতিরোধে সহায়তা করুন।’

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থানার গুণবতী গ্রাম থেকে মিসেস আলম জানান, আচমকা আজান শুরু হওয়ায় তারা প্রথমে হকচকিয়ে যান। প্রথমে তারা ভেবেছিলেন, ভূমিকম্প বা কোনও প্রাকৃতিক দুর্যেোগ হয়েছে। পরে জানতে পারেন, করোনার আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে আজান দেয়া হচ্ছে।

এস শিমুল/ দৈনিক প্রজন্ম ডটকম

মন্তব্য

উপর